একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে ফের মাথাচাড়া দিল সারাদা কেলেঙ্কারি। ২০১৩ সালে দেওয়া কুণাল ঘোষের বয়ানের ভিত্তিতে নতুন অস্ত্র পেল সিবিআই। কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে নিজেদের হেফাজতে পেতে সুপ্রিম কোর্টে ২৭৭ পাতার আবেদন করল সিবিআই। সেই আবেদনে কুণাল ঘোষের বয়ানের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। সেই কারনে রাজীব কুমারকে নিজেদের হেফাজতে পেতে মরিয়া সিবিআই।

আরও পড়ুন-'জমি দখল' নিয়ে মুখ খুললেন অর্মত্য সেন, তীব্র কটাক্ষ করলেন বিশ্বভারতীর উপাচার্যকে

সিবিআইয়ের ২৭৭ পাতার আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১১ সালের বিধানসভা ভোটে ২০৫ জনকে প্রার্থীকে ২৫ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হয়েছিল। সেই টাকা ঢেলেছিলেন সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেন ও অ্য়ালকেমিস্টের কর্ণধার কেডি সিং। প্রার্থীদের ২৫ লক্ষ টাকা বিলি করেছিলেন মুকুল রায় ও রজত রজত মজুমদার। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ এনেছে সিবিআই। এর জন্য রাজীব কুমারকে জেরার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছেন তাঁরা। সেকারণে, রাজীবকে নিজেদের হেফাজতে পেতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। 

আরও পড়ুন-ভোটের আগে নৃশংস রাজনৈতিক হিংসা, বিজেপিকর্মীর চোখ খুবলে নেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

সূত্রের খবর, সুপ্রিম কোর্টে আবেদনে সিবিআই উল্লেখ করেছে, সারদা কাণ্ডে গ্রেফতার হয়েছিলেন কুণাল ঘোষ। ২০১৩ সালে অক্টোবরে ইডি-কে দেওয়া বয়ানে এই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠেছে। ওই আবেদনে আরও চাঞ্চল্যকর অভিযোগ এনেছে সিবিআই। সেজন্য, প্রভাবশালী পুলিশ আধিকারিক রাজীব কুমারের পরামর্শ ছিল বলে সিবিআই সূত্রে খবর। এই জন্য রাজীব কুমারকে হেফাজতে নিয়ে জেরার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছে সিবিআই কর্তারা।