মঙ্গলবার বিজেপির পরিবর্তন যাত্রায় তিন জায়গা থেকে সূচনা করেন জেপি নাড্ডা। বীরভূমের পর লালগড় এবং পরে ঝাড়গ্রামে রথযাত্রার সূচনা করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। জেপি নাড্ডা যখন বীরভূমের কর্মসূচি সেরে লালগড়ের দিকে যাচ্ছিলেন। সেই সময় লালগড়ে ঝিটকার জঙ্গলে ঘটে গেল হামলার ঘটনা। বিজেপি কর্মীরা নাড্ডার সভায় যাওয়ার পথে তাঁদের উপর হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। 
আরও পড়ুন-রবীন্দ্রনাথের আসন বিতর্ক সংসদেও, অধীরের অভিযোগের সাফাই দিতে ছবি আর চিঠি পেশ অমিত শাহের

ঝিটকার জঙ্গলের কথা উঠলেই মাওবাদীদের কথা মনে পড়ে যায়। যদিও, বর্তমানে মাওবাদীদের অস্তিত্ব নেই। মঙ্গলবার বীরভূম থেকে হেলিকপ্টারে করে লালগড়ে পৌঁছান বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। সেখানে তাঁর সভায় যোগ দিতে বাসে করে আসছিলেন বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। ঝিটকার জঙ্গল রাস্তা যাওয়ার সময় তাঁদের বাস লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয় বলে অভিযোগ। গুলির আওয়াজ পেতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে বিজেপির কর্মী সমর্থকদের মধ্যে।

আরও পড়ুন-রায়গঞ্জে মমতার নির্বাচনী জনসভা, হাসপাতাল চত্বরে মাইক লাগানো ঘিরে বিতর্ক

যদিও, কে বা কারা গুলি চালাল, তা এখনও স্পষ্ট নয়। বিজেপির দাবি, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা দলীয় কর্মীদের বাস লক্ষ্য করে গুলি চালায়। বিজেপি কর্মীরা যাতে জেপি নাড্ডার সভায় যোগ দিতে না পারেন, সেজন্য জঙ্গল থেকে লুকিয়ে হামলা চালানো হয়েছে বলেও দাবি। বাসে হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। তবে, গুলি চালোনার ঘটনায় কেউ হতাহত হননি বলে খবর। যদিও, বিজেপি কর্মীদের উপর গুলি চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।