দল বদলের পর এখনও পর্যন্ত তিনটি সভা করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। সোমবার ঝাড়গ্রামে কর্মী বৈঠক করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এদিন ঝাড়গ্রাম যাওয়ার পথে পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের কাছে তাঁকে কালো পতাকা দেখান তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা। শুভেন্দুকে লক্ষ্য করে গো-ব্যাক স্লোগানও দেওয়া হয়। 

আরও পড়ুন-ডায়মন্ড হারবারে জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা, হোমগার্ডে বদলি হলেন পুলিশ সুপার ভোলানাথ পাণ্ডে

ঝাড়গ্রামেও শোভাযাত্রা করেন শুভেন্দু। প্রায় একশো মিটার পথ পায়ে হেঁটে বিজেপির কার্যালয়ে ঢোকেন তিনি। তাঁর সঙ্গে পদযাত্রায় পা মেলান বিজেপি নেতা কর্মীরা।  বিজেপি কার্যালয় থেকে দলীয় কর্মীদের শুভেন্দু বলেন, ''তৃণমূল থেকে যে ভূমিকা পালন করেছে তার দশগুণ সক্রিয় হয়ে কাজ করব। আপনারা সকলের সহযোগিতা করুন। গত কয়েকটি নির্বাচনে পুরুলিয়া ও ঝাড়গ্রামে তৃণমূল জিততে পারেনি। জোর করে দখল করা হয়েছে। তাই নিশ্চিন্তে সামনের নির্বাচনে জয়লাভ করব আমরা''। তৃণমূল নেত্রীর নন্দীগ্রাম সফর বাতিল হওয়া ও ছত্রধর মাহাতোর জঙ্গলমহলে নেতৃত্ব দেওয়া নিয়ে কটাক্ষ করে তিনি বলেন -''ওটা আর দল নেই একটা কোম্পানি। তাঁদের কর্মসূচি নিয়ে আমি কোন মন্তব্য করব না। আর সমাজবিরোধী ছত্রধর নিয়ে আমি কোন কথা বলব না। জঙ্গলমহলের অনেক মানুষের মৃত্যু হয়েছে তাঁর হাতে। তবে নেতাই ও ছোট আঙারিয়া দিবস পালনে আমি থাকব''। 

আরও পড়ুন-রাজীব-সিবিআই দড়ি টানাটানি, বিতর্কে জড়াতে চাই না রাজ্য সরকার, ইঙ্গিত দিলেন সুব্রত

ঝাড়গ্রামে বিজেপির কার্যালয়ে জেলার কার্যকর্তা, ঝাড়গ্রাম জেলার সমস্ত মন্ডল সভাপতি, জেলা বিজেপির কোর কমিটির সদস্যদের ডাকা হয়েছিল। জেলা সভাপতি সুখময় সৎপতি ছাড়াও ছিলেন সাংসদ কুনার হেমবরম । উপস্থিত কর্মীদের সঙ্গে প্রায় আধঘন্টা ধরে নিজের পরিচয় পর্বে তৃণমূলে থাকার বিভিন্ন কেচ্ছা তুলে ধরেন শুভেন্দু।