সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করতে বাধা পাচ্ছেন। নির্বাচনের আগে দল তাঁকে ডাকছে না। দিন কয়েক আগে দলের বিরুদ্ধে একগুচ্ছ ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়। তারপরই, তাঁর মানভঞ্জনের চেষ্টায় আসরে নামেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায় ও কুণাল ঘোষ। দলের প্রতি আস্থা জানিয়ে নতুন করে ফেসবুক পোস্ট করেন শতাব্দী। গোয়া ছুটি কাটাতে গিয়েও তৃণমূলের সাংগঠনিক পদে নতুন জায়গা পেলেন বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ।

'ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত', সায়নীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলেন BJP নেতা তথাগত

তৃণমূল রাজ্য় কমিটির সহ-সভাপতির পদে উন্নীত হয়েছেন সাংসদ শতাব্দী রায়। তাঁর সঙ্গে জুড়েছে আরও দুটি নাম মোয়াজ্জেম হোসেন ও শঙ্কর চক্রবর্তী। দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন শতাব্দী। তারপরই, অভিষেক ও কুণাল ঘোষের সঙ্গে আলোচনার পর দলের প্রতি আস্থা রয়েছে বলে পুণরায় নতুন একটি ফেসবুকে পোস্ট করেন। শনিবার দিল্লিতে গিয়ে অমিত শাহর সঙ্গে দেখা করার কথা থাকলেও, তিনি সেখানে যাননি। দিল্লির পথ থেকে ইউ-টার্ন নিয়েছিল শতাব্দী এক্সপ্রেস। তারপরই, রাজ্য কমিটিতে সহ সভাপতির পদ দিয়ে দল তাঁকে  পুরস্কৃত করল বলে মনে করছে রাজনৈতিকমহল।

আরও পড়ুন-বাম-কংগ্রেস বৈঠকে অধরা আসন রফা সূত্র, তবে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াইয়ের বার্তা অধীর-বিমানের

সাংগঠনিক পদে পেয়ে কী জানালেন শতাব্দী?

দলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের অবসান ঘটিয়ে নতুনভাবে দলে ফেরা। তারপরই দল তাঁকে পুরস্কার হিসেবে নতুন দায়িত্ব দিয়েছে। এই বিষয়ে বীরভূমের সাংসদ শতাব্দী রায় বলেন, ''দায়িত্ব পাওয়ার পর আমি খুব খুশি। আমি মনে করি, আমার দায়িত্ব আরও বেড়ে গেল। আমি বরাবরই কাজ করে এসেছি। আগামী দিনেও আরও ভালোভাবে কাজ করতে চাই। আমাকে এই দায়িত্ব দেওয়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় ও অভিষেকের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। দলে কী সুবিধা-অসুবিধা হচ্ছে? তা দলকে জানালে দল তা শোনে, এটাই তার প্রমাণ''। প্রতিক্রিয়ায় জানালেন বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ।