শনিবার পঞ্চম দফার ভোটের দিনেই রাজ্য সফরে শাহ-মোদী। এদিন রাজ্য আসছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শনিবার তাঁদের একধিক জায়গায় জনসভা রয়েছে। চতুর্থ দফার ভোটের হিংসা যাতে পুনরায় ফিরে না আসে, সেজন্য এদিন কড়া নিরাপত্তা কমিশনের।

আরও পড়ুন, চতুর্মুখী লড়াই, দেগঙ্গায় দড়ি টানাটানির খেলায় কে জিতবে স্থির হবে পঞ্চম দফার ভোটে 

 

 

এদিন রাজ্যের দুপুর ১২ টা ২০ মিনিটে আমডাঙা, দপুপর ২ টা নাগাদ চাপড়া এবং বিকেল ৩ টা ৪৫ মিনিটে আউশগ্রামে মোট ৩ জনসভা রয়েছে অমিত শাহ-র। পাশাপাশি  এদিন দুপুর ১২ টায় আসানসোলে  এবং গঙ্গারামপুরে দুপুর ২ টা ১৫ নাগাদ জমসভা করবেন নরেন্দ্রা মোদী। উল্লেখ্য, শনিবার রাজ্যে পঞ্চম দফার ভোট। ভোট হবে রাজ্য়ের ৬ জেলার ৪৫ আসনে। এই দফার জন্য থাকছে মোট ১০৭১ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। কমিশন সূত্রে খবর, তবে ৮৫৩ কোম্পনি বাহিনীকেই  ভোটের কাজে লাগানো হবে। পঞ্চম দফায় এদিন সাধারণ পর্যবেক্ষক রয়েছন ৩৩ জন। এদিন ভাগ্য নির্ধারণ হবে মোট ৩১৯ জন প্রার্থীর। ওদিকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে উবের ক্যাবের সাহায্যে ৮০ উর্ধ্ব ভোটার এবং বিশেষভানে সক্ষম ব্যাক্তিরা ভোট দিতে যেতে পারবেন। 

 

 

 

আরও দেখুন, Election Live Update-পঞ্চম দফার ভোট শুরু রাজ্য়ের ৬ জেলায় , থাকছে ফ্রি ক্যাবের সুবিধা, ওদিকে বঙ্গ সফর 


প্রসঙ্গত, আগের দিন অর্থাৎ শুক্রবারও রাজ্য়ে এসেছিলেন অমিত শাহ। রাজ্যে এসেই মমতাকে নিশানা করে বলেন,  'দিদি ভোটে হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা করছেন।' উল্লেখ্য, তুর্থ দফার ভোটে শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলি লেগে ৪ জনের মৃত্যু হওয়া নিয়ে সরগরম রাজ্য-রাজনীতি। এহেন শীতলকুচি পরিস্থিতি উত্তপ্ত করার জন্য় কেন্দ্রীয় বাহিনী ঘেরাও মমতার উসকানিমূলক মন্তব্যই যে দায়ী তা ইতিমধ্যেই বলেছেন বিজেপি সংখ্যা লঘু মোর্চার সভাপতি সিদ্দিকি আলি মিয়া। এবং কোচবিহারের থানায় মমতার বিরুদ্ধে এফআইআর করেছেন। আর তারপরেই শুক্রবার রাজ্যে এসে মমতার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন অমিত শাহ।