ফের নির্বাচনের ময়দানে মুকুল রায়। বৃহস্পতিবার আসন্ন পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের জন্য ১৪৮ জননের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করল বিজেপি। আর তারমধ্যে জ্বলজ্বল করছে দলের জাতীয় সহ সভাপতির নামও। কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্র থেকে তাঁকে প্রার্থী করেছে তাঁর নতুন দল। তাই ২০ বছর পর ফের একবার ভোটের ময়দানে দেখা যাবে মুকুল রায়কে। অবশ্য ২০ বছরের মধ্যে তাঁর পতাকার রংও গিয়েছে বদলে।

বাংলার রাজনীতিতে মুকুল রায় এক অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব। দলের হয়ে সংগঠন বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রে  তাঁর জুড়ি মেলা ভার। সাংগঠনিক রাজনীতিতে তাঁকে দেখা গেলেও, নির্বাচনী ময়দানে তাঁকে খুব একটা দেখা যায় না। এর আগে নির্বাচন লড়েছেন মাত্র একবার, ২০০১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে।

জগদ্দল আসন থেকে তাঁকে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফরোয়ার্ড ব্লকের হরিপদ বিশ্বাস পেয়েছিলেন ৭০,১৪৩ টি ভোট, আর মুকুল রায় পেয়েছিলেন ৫৬,৭৪১টি ভোট। সেই সময় অনেক পিছনে ছিলেন বিজেপি প্রার্থী। আর কোনও দিন নির্বাচনে লড়েননি মুকুল রায়। ২০০৬ সালে তাঁকে রাজ্যসভার সাংসদ করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। ২০১৭ সালে রাজ্যসভা থেকে পদত্যাগ করার আগে পর্যন্ত সেখানেই ছিলেন তিনি।  

আরও পড়ুন - নকশাল দূর্গ ঝাড়গ্রাম এখন বিজেপির ঘাঁটি, কীভাবে জমি তৈরি করে দিয়েছে আরএসএস, দেখুন

আরও পড়ুন - 'ধর্ম'-যুদ্ধ, বিজেপির চক্রবূহে ফেঁসে গিয়েছেন মমতা - এবার দুই কূলই না হারাতে হয়

আরও পড়ুন - নামকরণ, অনুকরণ এবং নাকচ - কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলি নিয়ে কোন খেলায় মেতেছেন মমতা, দেখুন

তবে তিনি তাঁর নিজের জেলা উত্তর ২৪ পরগনার কোনও আসন পাননি। যেতে হয়েছে পাশের রাজ্য নদীয়ায়। তবে তাঁর সঙ্গে সঙ্গে বিজেপির প্রার্থী তালিকায় নাম রয়েছে তাঁর পুত্র শুভ্রাংশু রায়-এরও। তিনি কিন্তু, তাঁর পছন্দের, বীজপুর কেন্দ্রই পেয়েছেন। এই কেন্দ্র থেকেই তিনি গত দুই বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিটে জয়ী হয়েছিলেন তিনি।