একুশের নির্বাচনে বাংলায় লড়াই করবে আসাদউদ্দিন ওয়েসির দল মিম। আসন্ন নির্বাচনে আব্বাস সিদ্দিকির নেতৃত্বে এ রাজ্যে ভোটে লড়বে তাঁরা। নির্বাচন নিয়ে রণকৌশল ঠিক করতে এদিন ফুরফুরা শরিফে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন আসাদউদ্দিন ওয়েসি। ঠিক সেই সময় গোটা মুর্শিদাবাদ চষে বেড়ালেন পুর ও নগরোন্নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

আরও পড়ুন-অবশেষে বিজেপির হয়ে পথে নামছেন শোভন-বৈশাখী, 'যদি বেহালায় আসতেন', কটাক্ষ রত্নার

মুর্শিদাবাদে সফরে গিয়ে  পুর ও নগর উন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম একাধিক জায়গায় সভা করেন। সেই সভা থেকে আসাদউদ্দিন ওয়েসি দল মিম ও  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ থেকে শুরু করে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাকে তীব্র আক্রমণ করেন তিনি। মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম তাঁর বক্তব্যে আসাদউদ্দিন ওয়েসি ও বিজেপিকে নিয়ে তৃণমূলের আগামীদিনের বিধানসভা নির্বাচনের মাথা ব্যথার কারণ। কার্যত তাই বুঝিয়ে দিলেন ফিরহাদ। সেইসঙ্গে, আসাদউদ্দিন ওয়েসির সঙ্গে পীরজাদার বৈঠক যে তৃণমূল মোটেই ভালোভাবে নিচ্ছে না সেটা বোঝাতেও এতটুকুও কসুর করেননি মন্ত্রী ফিরহাদ।    

আরও পড়ুন-ভোটের আগে ফের নবান্ন অভিযানের ডাক, ১১ ফেব্রুয়ারি বামেদের কর্মসূচিতে আমন্ত্রিত কংগ্রেসও

মিম ও বিজেপির বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে পুরমন্ত্রী বলেন," রাজ্যে বিজেপির বহিরাগত নেতারা থেকে অন্য কোনো রাজনৈতিক দলের নামধারী নেতারা যতবারই যার সঙ্গে এসে সাক্ষাৎ করুক না কেন তাতে কোন লাভ হবে না। রাজ্যের মানুষ বরাবরই সকলের একসঙ্গে বসবাস করে এসেছে। আর এই মুর্শিদাবাদের সিরাজের মাটি ইংরেজদের সঙ্গে লড়াই করে স্বাধীনতা অর্জন করেছেন। এখানকার মানুষ বেইমান নয়। তাঁরা ইমানদার। তাই একদিকে যেমন বড়লোকদের আদানি, আম্বানি দের সরকার বিজেপি একটিও ভোট পাবে না। পাশাপাশি, তাঁদের হয়ে দালালি করা মিমকে এখানকার মানুষ ছুঁড়ে ফেলে দেবেন"।