রবিবার বর্ধমানে বিজেপির পাল্টা রোড শো এগিয়ে নিয়ে চলছে তৃণমূল যুব কংগ্রেস। হুড খোলা গাড়িতে নের্তৃত্ব দিচ্ছে অভিনেতা তথা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের রাজ্য-সভাপতি সোহম চক্রবর্তী। ভোটের দোরগড়ায় রীতিমত হাড্ডা-হাড্ডি লড়াইয়ে নেমেছে ঘাসফুল শিবির।

আরও পড়ুন, 'নির্লজ্জতার কোনও সীমা নেই', বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়া নিয়ে মমতাকে আক্রমণ মালব্য়ের


প্রসঙ্গত, শনিবার শুধু রোড শো করেই থেমে থাকেনি বিজেপি তথা সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। রাধা গোবিন্ধ মন্দিরে পুজো দেওয়া থেকে শুরু করে কৃষক সুরক্ষা অভিযানের সূচনা। কৃষকদের মহাভোজের ঘোষণা থেকে শুরু করে দেশে রোজগারের ক্ষেত্রে কৃষিতে কেমন অবস্থান এই সব বিষয় গুলিই উঠে এসেছে। উঠে এসেছে ৩ কৃষি আইনের প্রসঙ্গও। এরপর রোড শোয়ে প্রায় লক্ষাধিক মানুষের ভীড়। এবং এই প্রথম উলট পূরাণ। যেখানে স্বয়ং  বিজেপি তথা সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা হুড খোলা গাড়ি থেকে নিজেই রাস্তা দুপাশে দাড়ানো মানুষের উপর, অনুগামী তথা সমর্থকদের উপর ফুল ছড়িয়েছেন। এবং বাংলার ক্ষমতায় যে বিজেপিই আসছেন, তা বিশ্বাস করিয়েছেন বাংলাকে। 

আরও পড়ুন, BJP কর্মীদের উপর 'হামলা' তৃণমূলের, অবস্থা আশঙ্কাজনক, রণক্ষেত্র চন্দ্রকোণা


উল্লেখ্য, তারিখ এবং স্থান নিয়ে রীতিমত লড়াই-বিতর্ক শাসক দল এবং বিরোধী দলের মধ্য়ে। যা আগে কখনও দেখেনি বাংলা। একুশের বিধানসভার দোরগড়ায় তাই বিজেপিকে অনুকরণ করতে ছাড়ছে না তৃণমূল, এমনটাই চাপান উতোর রাজনৈতিক মহলে। জমায়েতের মাধ্যমে শক্তি প্রদর্শনই হয়ে উঠেছে মূল বিষয়। তাই নাড্ডা-দিলীপ-মুকুল-শুভেন্দুকে হারাতে বর্ধমানের রোড শোয়ে কার্যত মরিয়া  তৃণমূল যুব কংগ্রেস।

আরও পড়ুন, হোমের কিশোরীকে সেফটিপিন ফুটিয়ে অত্যাচার, মিথ্যাচারের অভিযোগে মমতাকে তোপ অগ্নিমিত্রার


অপরদিকে, রবিবার একই সময় পুরুলিয়ার কাশিপুর থেকে সভা শুরু করেছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। মোট পথ ২ কিলোমিটারের কাছাকাছি। পাশাপাশি উত্তর ২৪ পরগণার বারাসাতেও তৃণমূলের সভায় রয়েছেন চন্দ্রিমা, হালিশহরে সুজাতা খান এবং হাবড়ায় রয়েছেন ব্রাত্য বসু। সবদিকে ভোট যতো এগিয়ে আসছে প্রতিদিনই বাংলার সব সকল বিরোধী তথা শাসকদলের সভায় বাকযুদ্ধও বেড়ে চলেছে। তবে দিন ফুরোলেই সোমবার আবার নদিয়ায় মমতার সভার দিকে তাঁকিয়ে রয়েছে সারা বাংলা।