প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যাত করেছিল সে। কিন্তু বিয়ের প্রতিশ্রুতি আর ফেরাতে পারেনি বছর ষোলোর কিশোরীটি। আর সেটাই কাল হল। নবম শ্রেণীর ওই ছাত্রীকে প্রেমিকই ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ।  অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগণার অশোকনগরে।

আরও পড়ুন: বর্ধমানে ফের এনআরসি আতঙ্কে মৃত্যু, উত্তর দিনাজপুরে আত্মহত্যার চেষ্টা কৃষকের

অভিযুক্তের নাম মণিরুল মণ্ডল। বাড়ি, অশোকনগরের হিজলিয়া এলাকায়।  সেলাইয়ের কাজ করে মণিরুল।  নির্যাতিতা কিশোরী তার প্রতিবেশী। পরিবারের লোকেদের দাবি, বছর চারেক আগে ফোনে মাধ্যমে ওই কিশোরীর সঙ্গে পরিচয় হয় মণিরুলের। যথারীতি তাকে প্রেমের প্রস্তাবও দেয় ওই যুবক, রাজি হয়নি ওই কিশোরী। কিন্তু বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরই দু'জনের মধ্যে ঘনিষ্ট সম্পর্ক তৈরি হয়।  শুধু তাই নয়, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ওই কিশোরীকে মণিরুল ধর্ষণও করেছে বলে অভিযোগ। নির্যাতিতার পরিবারের দাবি, প্রেমিকের সঙ্গে অবাধ মেলামেশার কারণে দু'বার গর্ভবতী হয়ে পড়ে নির্যাতিতা কিশোরী। ভয় দেখিয়ে দুবারই তার গর্ভপাত করিয়েছে মণিরুল।

আরও পড়ুন: শতায়ুর মৃত্যুতে আনন্দে মাতল গ্রাম, ব্য়ান্ড-বাজার সঙ্গে ফাটল বোমা

এদিকে বিয়ে করা তো দূর অস্ত, ওই কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্কে কথাও এখন আর স্বীকার করতে চাইছে না মণিরুল। তেমনই অভিযোগ নির্যাতিতার পরিবারের। প্রেমিকাকে এড়িয়ে চলছে সে। মঙ্গলবার রাতে অশোকনগর থানার দ্বারস্থ হয় ওই কিশোরীর পরিবারের লোকেরা। থানায় লিখিতভাবে মণিরুলের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতা। রাতেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ।