বুদ্ধদেব পাত্র, পুরুলিয়া: লকডাউনের বাজারে কাজ হারিয়ে দলে দলে পরিযায়ী শ্রমিক ফিরছেন রাজ্যে। হু হু করে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে পুরুলিয়ায়। মাত্র ন'দিনের ব্যবধানে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৬১।  নতুন করে সংক্রমিত হলেন ৪৩ জন। সকলেই ভিনরাজ্য থেকে আসা শ্রমিক। চড়ছে আতঙ্কের পারদ।

আরও পড়ুন: কোভিডে অচল মমতার পিপিই হাসপাতাল, বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ চিকিৎসক নার্সদের

কেউ কাজ করতেন গুজরাতে, তো কারও আবার কর্মস্থল মহারাষ্ট্র কিংবা দিল্লি। ফেরার পর নিয়মমাফিক লালারস বা সোয়াব টেস্ট করা হয় পরিযায়ী শ্রমিকদের। পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন ব্লকে পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে ৪৩ জনের! জানা গিয়েছে, জয়পুর ব্লকের সিধি-জামড়া এলাকা থেকে স্ত্রী ও এক বছরের সন্তানকে গুরগাঁও-এ কাজ করতে গিয়েছিলেন এক ব্য়ক্তি। করোনার হাত রেহাই পায়নি একরত্তি শিশুটিও। পরিযায়ী যোগে মারণ ভাইরাস ঢুকেছে বলরামপুর, বরাবাজার, হুড়া, ঝালদা ও আড়শা ব্লকে। করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে পুরুলিয়ায় মফঃস্বল ও কেন্দা থানা এলাকায়। আক্রান্তদের সকলকেই রাখা হয়েছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে। এলাকাগুলি কনটেনমেন্ট জোন ও বাফার জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে প্রশাসন। 

আরও পড়ুন: হলদিয়ার সঙ্গে কলকাতার জলপথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, আমফানে ৫ টনের জেটি জলের তলায়

প্রশাসন সূত্রে খবর, পুরুলিয়া জেলায় পরিযায়ী শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ৫৫ হাজার। ভিন রাজ্য পুরুলিয়া হয়ে নিজেদের জেলায় ফিরছেন, এমন পরিযায়ী শ্রমিকের সংখ্যাও কম নয়। বাইরে থেকে যাঁরা আসছেন, তাঁদের জন্য খোলা হয়েছে ট্রানজিট সেন্টার। শুক্রবার পর্যন্ত সেখানে আশ্রয় নিয়েছেন ১ লাখের বেশি মানুষ। আর হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ২০ হাজার ৬৭২ জন।