আজ সরস্বতী পুজো। ইতিমধ্যেই  তড়িঘড়ি করে শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর প্রস্তুতি। আর সরস্বতী পুজো মানে  বাঙালির ভ্যালেন্টাইন।  এই দিনটি নিয়ে বরাবরই বাঙালিদের একটা অন্য ভাললাগা রয়েছে। একেক জনের একেক প্ল্যান আর সেই প্ল্যান এখন থেকেই ঠিক। কেউ যাবে তো স্কুলে, আবার কেউ বা কলেজে আবার কেউ কেউ আজকের দিনটিকেই বেছে নেবে পুরোনো বন্ধুদের সঙ্গে জমাটি আড্ডায় মাততে। কিন্তু সরকারি কর্মচারীদের জন্য  সরস্বতী পুজো  মানে খানিকটা দুর্গাপুজোর মতো।  সরস্বতী পুজোয় টানা তিনদিনের ছুটি ঘোষণা করেছিল রাজ্য সরকার। তারপর শনি-রবি মিলিয়ে  আরও ২ দিন। অর্থাৎ একটানা ৫ দিন ছুটি। এই খবর ঘোষণা হওয়া মাত্রই সরকারি কর্মীদের খুশিতে যেন আর ধরছিল না।

আরও পড়ুন-কলকাতায় ফের বাড়ছে পেঁয়াজের দাম, মূল্য়বৃদ্ধিতে লাগাম পরাতে তৎপর রাজ্য সরকার...

অবশেষে সব আশায় জল ঢেলে  বাতিল করা হল এই একটানা পাঁচ দিনের ছুটি।  মাসের শেষে একটানা ছুটির ফলে আটকে যেতে পারে কর্মীদের মাইনে। যার ফলেই বাতিল করা হল এই ছুটি। মাসের শেষে একটানা ছুটি দিলে বিপাকে পড়তে হত বাকি কর্মীদের। কারণ এই সময়েই বিভিন্ন দফতরের বিল জমা পড়ে কোষাগার দফতরে। ইতিমধ্যেই বিল আসা শুরু হয়ে গিয়েছে। যার ফলে অর্থ দফতর বিজ্ঞপ্তি জারি করে কর্মীদের ছুটি বাতিল করেছে।

আরও পড়ুন-বাহরুদ্দিনের হাতেই সূচনা সরস্বতী পুজোর, সম্প্রীতির বার্তা দিল নন্দীগ্রাম...

 বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২৯,৩০,৩১ জানুয়ারি ছুটি ঘোষনা করা হলেও ৩১ জানুয়ারি সাধারণ দিনের মতোই কাজ করতে হবে ট্রেজারি কর্মচারীদের। ওই দিনে জেলাশাসক, ও ডিভিশনাল অফিসার দফতরে ট্রেজারি দফতর অবশ্যই খোলা রাখতে হবে।  আর এই দিনই সমস্ত ট্রেজারি কর্মচারীদের কাজে যোগ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে অন্যান্য দফতরের ছুটি থাকবে।