ভরা উৎসবেরই মাঝেই অস্বাভাবিক মৃত্যু তপনের জামালপুর গ্রামে। সূত্রের খবর, ৫ জনের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রক্তে ভেসে গেছে চারিদিক। মাছি ভোঁ ভোঁ করছে। গলার আওয়াজ বুজে আসছে। কেন হল এমন, অসহায় হয়ে কাঁদছে মৃতের কাছের লোক। 

আরও পড়ুন, 'কাকে ধরেছেন, ইউটিউব খুলে দেখুন', জীবনতলায় পুলিশকে শাসানি হুগলির বিশালের

 

তখন সবে সকাল হয়েছে জামালপুর গ্রামে

 কোনও যোগী রাজ্য নয়, 'মা-মাটি-মানুষ'-র রাজ্য়েই এমন নৃশংস মৃত্যু দেখল জামালপুর গ্রাম। দক্ষিণ দিনাজপুরের তপনের জামালপুর গ্রামে তখন ভোরের স্নিগ্ন বাতাস আর আলতা মেখে সূর্যোদয় হয়েছে। তখনও বোধয় জানতো না জামালপুর রবিবার দিনটায় কী অপেক্ষা করছে তাঁদের জন্য। তখন সবে সকাল হয়েছে, সাড়া না পেয়ে প্রতিবেশিরা বাড়িতে ভিতরে যান। ঢুকতেই শরীর কেঁপে ওঠে তখুনই।  একটা দুটো নয়, ৫ জনের মৃতদেহ। দেহ উদ্ধার হওয়ার পর স্বাভাবিকভাবে ওই এলাকায় আতঙ্ক নেমেছে।  

আরও পড়ুন, 'স্টেশনে যাত্রী ওঠানামা বন্ধের নির্দেশ দিতে হবে', লোকাল ট্রেন চালুর আগেই মামলা হাইকোর্টে

 

কেন, কী কারণে এভাবে চলে যেতে হল তাঁদেরকে

সূত্রের খবর,পরিবার প্রধানের ঝুলন্ত ও দুই শিশু এক বৃদ্ধ সহ বাকি চার জনের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, পরিবার প্রধান অনু বর্মন পেশায় কৃষক দীর্ঘ্যদিন হার্টের অসুখে অসুস্থ ছিলেন। তাঁর স্ত্রীর নাম মল্লিকা  বর্মন, মা উল্লোবালা বর্মন এবং বছর সাতের মেয়ে স্নিগ্ধা এবং বছর এগারোর মেয়ে বিউটি প্রত্যেকেরই ক্ষতবিক্ষত দেহ এখন ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে তপন থানার পুলিশ। তবে কেন, কী কারণে এভাবে চলে যেতে হল তাঁদেরকে এখনও জানা যায়নি। 

 

আরও পড়ুন, ২ স্ত্রীর সঙ্গে লাইভ স্ট্রীমিং চলাকালীন সঙ্গম, পুলিশের জালে গুণধর যুবক