এ রাজ্যে দুষ্কৃতীরা কি ক্রমশই বেপরোয়া হয়ে উঠছে? পুলিশকর্মীদেরও আর রেয়াত করছে না তারা।  আসানসোলের পর এবার দক্ষিণ ২৪ পরগণার ক্যানিংয়ে গুলিবিদ্ধ হলেন এক কনস্টেবল। শারীরিক অবস্থা গুরুতর, হাসপাতালে ভর্তি তিনি।

ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার। সন্ধ্যায় ক্যানিং বাজার লাগোয়া সাত নম্বর দিঘি পাড়ায় একটি ঝামেলা হয়। ঘটনায় নাম জড়ায় বিপ্লব সেন নামে এক কুখ্যাত দুষ্কৃতীরা। গোপন সূত্রে খবর পৌঁছয় ক্যানিং থানায়। পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে বিপ্লবকে ধরতে যখন সদলবদলে অভিযান চালান সোম রাই টুডু নামে এক কনস্টেবল, তখন  পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাথারি গুলি চালাতে শুরু করে ওই দুষ্কৃতী। সোম রাই টুডু-এর পায়ে গুলি লাগে। তড়িঘড়ি তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় শেষপর্যন্ত তাঁকে কলকাতা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। গুলিবিদ্ধ ওই কনস্টেবলের শারীরিক অবস্থা গুরুতর। 

আরও পড়ুন: ডেকে পাঠিয়ে 'কর্তৃপক্ষের হুমকি', দুই ছাত্রীর পর আত্মহত্যার চেষ্টা ছাত্রের

ইদানিং এ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে দুষ্কৃতীদের ধরতে গিয়ে কিন্তু আক্রান্ত হচ্ছেন পুলিশকর্মীরাই।  সপ্তাহ খানেক আগে আসানসোলে ভোররাতে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে চম্পট দিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। গুলিবিদ্ধ হন এসআই-সহ দু'জন পুলিশকর্মীরা। শুধু তাই নয়, গুলি চালানোর আগে পুলিশকর্মীদের চোখে লঙ্কার গুঁড়োও ছিটিয়ে দেওয়া হয় অভিযোগ। পরে অবশ্য হাওড়ার জগাছা থেকে দুষ্কৃতীরা ধরাও পড়ে যায়। তারও আগে উত্তর চব্বিশ পরগণার সন্দেশখালিতে রুটিন তল্লাশিতে বেরিয়ে দুষ্কৃতীদের গুলি প্রাণ হারিয়েছিলেন এক ভিলেজ পুলিশকর্মী।  পুলিশমহলের একাংশের অভিযোগ, অনেক সময়ে পর্যাপ্ত অস্ত্র ছাড়া অভিযানে চলে যান পুলিশকর্মীরা। তাতে বিপদে পড়তে হয় তাঁদের।  জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে ক্যানিংয়ে পুলিশকর্মীদের ঘিরে ফেলে গুলি চালাতে শুরু করে অভিযুক্ত বিপ্লব সেন ও তাঁর শাগরেদরা। বাকি পালিয়ে গেলেও, কনস্টেবল সোম রাই টুডু পারেননি।