সংশোধনাগারের মধ্য়ে থেকেই উদ্ধার করা হল এক বিচারাধীন বন্দির দেহ। ঘটনা মালদা জেলা সংশোধনাগারের। ঘটনার পরেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। বুধবার দুপুরে মালদা সংশোধনাগারের নির্মীয়মাণ রান্না ঘর থেকে জেল পুলিশ কর্মীরা উদ্ধার করে দেহটি। 

জেল পুলিশ সূত্রেই জানা গিয়েছে, মৃত বন্দির নাম রাজু মণ্ডল(৩২)। মৃতের বাড়ি ইংরেজবাজার শহরের কৃষ্ণপল্লী নেতাজি কলোনি এলাকায়। গত ১৭ মার্চ ২০১৯ তারিখ থেকে বিচারাধীন আবস্থায় কারাগারে ছিল রাজু মণ্ডল। শিশুর উপরে যৌন হেনস্থার মামলা ছিল এই মৃত বন্দির নামে। 

প্রতিদিনের মতোই বুধবারও জেলের বন্দিদেরকে গুনছিলেন জেল কর্মীরা। সেই সময় থেকেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না রাজু মণ্ডলকে। পুরো জেলখানা খোঁজার পরে নির্মীয়মান রান্নাঘরে খুঁজতে গেলে পাওয়া যায় রাজুর ঝুলন্ত মৃতদেহ। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, লোহার রডে দড়ি বেঁধে সেখানে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে রাজু মণ্ডল। ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ। কিন্তু জেলের কর্মীরা মুখে কুলুপ এঁটেছে। 

ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। জেল কর্মীদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।