স্কুলে যাওয়ার জন্য বাড়িতে বেরিয়েছিল সে, আর ফেরা হল না। রাস্তায় মাটি বোঝাই ট্যাক্টরের ধাক্কা প্রাণ গেল ছয় বছরের এক শিশুর। ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল নদিয়ার চাকদহ। ঘাতক গাড়িটিতে আগুন লাগিয়ে দিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

মৃতের নাম অঙ্কুর বিশ্বাস। বাড়ি, চাকদহের বাগডোব এলাকায়। রোজকার মতোই বুধবার সকালেও ঠাকুমার সঙ্গে স্কুলে যাচ্ছিল অঙ্কুশ। রাস্তার পার হওয়ার সময়েই ঘটে দুর্ঘটনা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পিছন থেকে এসে মাটির বোঝাই ট্যাক্টর এসে সজোরে ধাক্কা মারে শিশুটিকে। ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে। ঘটনার পর ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয় বাসিন্দারা। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে ট্রাক্টর ফেলে পালিয়ে যায় চালক ও  খালাসি। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় গাড়িটিতে।  ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দমকল ও পুলিশ। পুলিশের তৎপতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই এলাকায় বেআইনি মাটি কাটার কাজ চলছে। ট্রাক্টরে ভরে সেই মাটি পাচার করে দেওয়া হচ্ছে অন্যত্র। ঘাতক ট্রাক্টরটি গতি অত্যন্ত বেশি ছিল। শেষপর্যন্ত চালক আর গাড়িটির নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারেননি। তারজেরেই ঘটেছে দুর্ঘটনা।

আরও পড়ুন: থানা থেকে ফেরার পথে আক্রান্ত তৃণমূল কাউন্সিলর, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম স্বামী

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে জলপাইগুড়ির ময়নাগুড়িতে টিউশনি পড়তে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে দুই জন ছাত্র। গরুবোঝাই গাড়ির ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই মারা যায় একজন, গুরুতর আহত হয় অন্যজন।  ঘটনার পর ঘাতক গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেন স্থানীয় বাসিন্দাদের, পুলিশকে ঘিরে চলে বিক্ষোভ। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে, যে ব়্যাফ নামাতে হয় এলাকায়। আর এবার দুর্ঘটনা ঘটল নদিয়ার চাকদহে।