পুলিশ বিজেপি সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে মাথা ফাটল ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের। শ্যামনগরে বিজেপি পার্টি অফিস দখলকে কেন্দ্র করে এ দিন সকাল থেকে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। ক্রমে এই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে কাঁকিনাড়া এলাকায়। পথ অবরোধ করে বিজেপি। পুলিশ লাঠিচার্জ করে সেই অবরোধ তুলতে গেলে পাল্টা ইট ছোড়ে বিজেপি সমর্থকরা। তারই মাঝে পড়ে মাথা ফাটে অর্জুন সিংয়ের। 

আরও পড়ুন- রণক্ষেত্র কাঁকিনাড়া, মাথা ফাটল বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের

বিজেপি সাংসদের অবশ্য অভিযোগ,মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মার লাঠির আঘাতে তাঁর মাথা ফেটেছে। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূল নেতা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তাঁর দাবি ঘটনার সময় সেখানে ছিলেনই না পুলিশ কমিশনার। 

আহত সাংসদকে প্রথমে ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অর্জুন সিংয়ের দাবি, তাঁর মাথায় দশ থেকে বারোটি সেলাই পড়েছে। আঘাত গুরুতর হওয়ায় কোনও ঝুঁকি না নিয়ে অর্জুন সিংহকে ই এম বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে তাঁর চিকিৎসার জন্য একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। যেহেতু বিজেপি সাংসদের মাথায় দশ থেকে বারোটি সেলায় পড়েছে, সেক্ষেত্রে তাঁর মাথার ভিতরে কোনও ধরনের আঘাত লেগেছে কি না, তা জানতে সিটি স্ক্যান- সহ যাবতীয় পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হচ্ছে। বিজেপি নেতা মুকুল রায়ও অভিযোগ করেন, পরিকল্পিতভাবে অর্জুন সিংয়ের উপরে হামলা চালানো হয়েছে। 

অর্জুনের উপরে হামলার পরেই তাঁর বাড়ির সামনে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়। সেখানে হাজির ছিলেন পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মাও। অন্যদিকে এই ঘটনায় অর্জুন সিংয়ের ছেলে বিধায়ক পবন সিংকেও পুলিশ মারধর করেছে বলে অভিযোগ।