শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত-বিজেপি নেতার কাছে জবকার্ড চাইতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন দুই গৃহবধূ। তাঁদের জবকার্ড আটকে রেখে দীর্ঘদিন ধরে হেনস্থা করা হয় বলে অভিযোগ। এদিন তাঁরা জবকার্ড চাইতে গেলে ওই দুই মহিলাকে বেধড়ক মারধর ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, তাঁদের বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠেছে বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে। 

আরও পড়ুন-অসাবধানতার 'মাশুল', মোরাম ফেলতে গিয়ে ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যু চালকের

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার হাড়োয়া থানার গোপালপুর এক নম্বর পঞ্চায়েতের দাসপাড়া গ্রামে। অভিযোগ, এলাকার বিজেপি নেতা তুফান রুই দাস একশো দিনের জন্য দুই মহিলার জবকার্ড আটকে রাখে। বৃহস্পতিবার রাতে তুফানের কাছে জবকার্ড চাইতে যায় ওই মহিলা। তখনই তাঁদের মাটিতে ফেলে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তাঁদের শ্লীলতাহানি করা হয় বলে অভিযোগ। অভিযোগ উঠেছে তুফান দাস, বিট্টু দাস, সুমন দাস ও শুকদেব দাস। ঘটনার জেরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। আক্রান্ত দুই মহিলাকে জখম অবস্থায় হাড়োয়া গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

আরও পড়ুন-বাড়ির চিলেকোঠায় বিরলপ্রজাতির পেঁচার বাসা, শোরগোল মুর্শিদাবাদের

ঘটনায় তুফান রুইদাসের বিরুদ্ধে হাড়োয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। যদিও, মারধরের অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে তুফান রুইদাস। ওই মহিলাদের বিরুদ্ধে হাড়োয়া থানায় পালটা অভিযোগ দায়ের করেছে ওই বিজেপি নেতা। ঘটনার পিছনে শুধুই জবকার্ড না অন্য কোনও কারন আছে। তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।