ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার করা হল বিজেপির মজদুর ইউনিয়নের রাজ্য সভাপতি বাবান ঘোষকে। রেলের কমিটিতে সদস্যপদ পাইয়ে দেওয়ার নামে ৪৬ লক্ষ টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।  এফআইআরে নাম রয়েছে বিজেপি নেতা মুকুল রায়েরও।

গত জানুয়ারি মাসে সন্তু গাঙ্গুলী নামের এক ব্য়বসায়ী সরসুনা থানায় বাবান ঘোষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। ওই ব্য়ক্তির অভিযোগ, বিজেপির রেল বোর্ডের মেম্বার করার জন্য তাঁর কাছ থেকে দফায় দফায় ৪৬ লক্ষ টাকা ঘুষ নেয় বাবান। মূলত মুকুল রায়ের নাম করেই এই টাকা নেন বাবান । এরপরই ঘুষ নেওয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে পাটুলি থেকে বাবানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার বিরুধ্যে ৪২০,১২০বি অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র ধারায় মামলা রুজু করে পুলিশ। যেহেতু মুকুল রায়ের নাম করে এই টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে, তাই এফআইআরে মুকুলের নামও রেখেছে পুলিশ। 

আরও পড়ুনঃ শোভন,বৈশাখী ভাত-ডাল, এ কেমন মন্তব্য় দিলীপের

জানা গেছে সব মিলিয়ে এই ঘুষের মামলায় চারজনের নাম রয়েছে। সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দেন বাবান। টলিপাড়ায় কান পাতলে শোনা যায়,ঘাসফুল ব্রিগেড থেকে বহু টলিপাড়ার কর্মীদের বিজেপিতে আনতে সমর্থ হয়েছেন বাবান।  এদিকে বাবানের বিরুদ্ধে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। জোর করে বিজেপি নেতাদের বিভিন্ন মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি। ইতিমধ্য়েই কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলায় আগাম জামিনের আবেদন করেছেন মুকুল রায়।