নৈহাটিতে বাজি নিষ্ক্রিয় করতে গিয়ে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনার এনআইএ তদন্তের দাবি জানালেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। একই দাবি জানিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। একধাপ এগিয়ে রাজ্যপাল মনে করিয়ে দিয়েছেন, এই ধরনের ঘটনায় প্রয়োজনে রাজ্যের অনুমতি না নিয়েই এনআইএ তদন্তের নির্দেশ দিতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। 

বৃহস্পতিবার নৈহাটির রামগড় এলাকায় গঙ্গার পাড়ে বেআইনি বাজি কারখানা থেকে বাজেয়াপ্ত বাজি নিষ্ক্রিয় করছিল পুলিশ। তখনই ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে এলাকা। নৈহাটিতে তো বটেই, বিস্ফোরণের অভিঘাতে গঙ্গার উল্টোদিকে চুঁচুড়াতেও প্রচুর বাড়ির ক্ষয়ক্ষতি হয়। আহতও হয় কয়েকজন। এই ঘটনায় পুলিশের ভূমিকায় বড়সড় প্রশ্ন উঠেছে। 

এই ঘটনাতই এনআইএ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। তিনি বলেন, 'বিস্ফোরণের যে তীব্রতা এবং মাত্রা, এটা ছোটখাটো বিস্ফোরকের মতো মনে হয়েছে। এত বিস্ফোরক কোথা থেকে এল, কীভাবে বিস্ফোরণ ঘটল, কীভাবে ছিল, এ সবকিছুরই কেন্দ্রীয় স্তরে তদন্ত হওয়া উচিত।'  

আরও পড়ুন- বাজি নিষ্ক্রিয় করতে গিয়ে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, কেঁপে উঠল নৈহাটি-চুঁচুড়া

রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও একই দাবি জানিয়ে বলেন, 'খুব ভয়ের বিষয়। পশ্চিমবঙ্গের সবার কাছে অনুরোধ, যাঁরা সরকারে আছেন, দয়া করে দ্রুত তৎপর হোন। আইন অনুযায়ী এনআইএ-এর এই অপরাধে তদন্ত করতে পারে। কেন্দ্রীয় সরকার এমন ঘটনায় সরাসরি এনআইএ তদন্তের নির্দেশ দিতে পারে। সেক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের কিছু বলার থাকতে পারে না। রাজ্য সরকার নিজে থেকেই এনআইএ তদন্তের জন্য অনুরোধ করতে পারে। রাজ্য বা কেন্দ্রীয় সরকার এ নিয়ে কী পদক্ষেপ করবে, তা আমি তাদের উপরেই ছাড়ছি।'

ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। শুক্রবারই ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত শুরু করেছেন সিআইডি-র বিশেষজ্ঞরা। যদিও নৈহাটির ঘটনায় সিআইডি তদন্তে যে তাঁর বিশেষ আস্থা নেই, এনআইএ তদন্তের জন্য সওয়াল করে তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন রাজ্যপাল।