আশিষ মণ্ডল, বীরভূম:  শান্তিনিকেতনে এবার পঞ্চায়েত অফিসে তাণ্ডব-ভাঙচুর। আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে দুই লক্ষ টাকা ছিনতাই করে নিলেন স্থানীয় এক বিজেপি নেতা ও তাঁর অনুগামীরা! অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছো কঙ্কালীতলা গ্রাম পঞ্চায়েতে।

আরও পড়ুন: 'বুথ দখল করে জয় আনব', কর্মিসভায় বুথ সভাপতির হুঁশিয়ারিতে অস্বস্তিতে অনুব্রত

বীরভূমে শান্তিনিকেতন থানার অন্তর্গত কঙ্কালীতলা পঞ্চায়েত। এই পঞ্চায়েতটি তৃণমূলের দখলে। বৃহস্পতিবার সকালে আগ্নেয়াস্ত্র হাতে পঞ্চায়েত অফিসে ঢুকে রীতিমতো তাণ্ডব চালালেন স্থানীয় বিজেপি নেতা সন্তোষ ভৌমিক। অভিযোগ তেমনই। কঙ্কালীতলা পঞ্চায়েতের  এক্সিকিউটিভ অ্যাসিস্ট্যান্ট নিতাইচন্দ্র  মণ্ডল বলেন, 'আমি যখন অফিসে ঢুকি তখন আমার সঙ্গে একজন ঢুকে উপপ্রধানের নামে গালিগালাজ করে। প্রাণে মেরে দেওয়ার হুমকি দেয়। এরপর আমার জামা ধরে টানাটানি করে। বন্ধুক দিয়ে গুলি করার হুমকি দেয়। কিছু কাগজপত্র তছনছ করে।' উপপ্রধান মামন শেখের বক্তব্য, 'ট্রাক্টরে করে ওরা পঞ্চায়েতে আসে। আমাকে না পেয়ে এক্সিকিউটিভ সাহেবকে গালিগালাজ করে। কিছু কাগজপত্র নিয়ে পালিয়েছে। সঙ্গে এক লক্ষ ৮৩ হাজার টাকাও।' খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত বিজেপি নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আরও পড়ুন: ফের করোনা প্রাণ কাড়ল বিধায়কের,এবার বলি ইন্দাসের বিধায়ক গুরুপদ মেটে

কী বলছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব? দলের বোলপুর গ্রামীণ ব্লকের সভাপতি জয়দেব বিশ্বাসের দাবি, ওই বিজেপি কর্মী তাঁর পরিবারের উত্তারাধিকার সংক্রান্ত শংসাপত্র নিতে বেশ কিছু দিন থেকে পঞ্চায়েতে ঘুরছেন। বৃহস্পতিবারও গিয়েছিলেন। কিন্তু উপপ্রধান আসেননি বলে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া  হয়। এনিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। বিজেপি হিংসার রাজনীতি পছন্দ করে না।'