আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: 'প্রয়োজন হলে বুথ দখল করে জয় ছিনিয়ে আনব। এটা আমার প্রতিজ্ঞা।' তৃণমূলের বুথভিত্তিক সম্মেলনে এভাবেই জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে আশ্বস্ত করলেন তৃণমূলের এক বুথ সভাপতি। যদিও অনুব্রতবাবুর দাবি, ভুল করে বলে ফেলেছে।

আরও পড়ুন: নেতাদের নিয়োগ মানব না, দলীয় সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ঝান্ডা হাতে প্রতিবাদ তৃণমূলেই

বীরভূমের মুরারই ২ নম্বর ব্লকের বুথভিত্তিক সম্মেলনে বৃহস্পতিবার ছিল জাজিগ্রাম, নন্দীগ্রাম ও পাইকড় ২ নম্বর ব্লকের বুথভিত্তিক সম্মেলন। পাইকড় হিয়াতনগর মোড়ে একটি হাইমাদ্রাসায় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন মুরারইয়ের বিধায়ক আব্দুর রহমান, দলের জেলা সহ সভাপতি সৈয়দ সিরাজ জিম্মি, সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব ভট্টাচার্য, ব্লক সভাপতি আবতাবুদ্দিন মল্লিক। 

আরও পড়ুন: বিজেপি করার অপরাধে 'সরকারি প্রকল্পে বঞ্চনা', পুরসভার সামনে ধর্না দম্পতির

সভার দ্বিতীয় পর্বে ডাকা হয় পাইকড় ২ অঞ্চল তৃণমূল নেতাদের।  ২৫০ নম্বর বুথ তীরোগ্রামে লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল ১৯৩ ভোটে পিছিয়ে ছিল রাজ্যের শাসকদল। অনুব্রত মণ্ডল বুথ সভাপতি নীলরতন মাহারাকে প্রশ্ন করেন, 'আমাদের পরাজয় হল কেন?' উত্তরে নীলরতন বলেন,  'আমরা রাস্তাঘাট করে দিয়েছি। পানীয় জল করে দিয়েছি। তাও মানুষ আমাদের ভোট দেয়নি। তবে এবার জয় আনবই। যদি না পারি তাহলে বুথ দখল করে জয় ছিনিয়ে আনব।'  সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আরও মারাত্মক কথা বলেন ওই বুথ সভাপতি।  বলেন, 'আমরা বুথে কোন বিরোধী এজেন্টকে বসতে দেব না। ঢুকলে তাদের চুপচাপ বসে থাকতে হবে। এতো উন্নয়ন করেছি, তা সত্ত্বেও মানুষ ভোট না দিলে এভাবেই ভোট করব।' যদি কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকে? সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, 'কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকলে থাকবে। আমাদের গ্রামে ঢুকে তারা বাড়াবাড়ি করতে পারবে না। বাড়াবাড়ি করলে গ্রাম তো দুরের কথা স্কুল থেকে বের হতে দেব না।'  যদিও বুথ সভাপতির ওই মন্তব্যকে সমর্থন করেননি অনুব্রত মণ্ডল। তিনি বলেন, 'মানুষ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দেবে। কে কি বলল ওসব কোন ব্যাপার নেই।'