রাজ্য রাজনীতিতে সাপে-নেউলে সম্পর্ক বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের। দুই পক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ শানিয়ে চলেছে। আর এই চেনা সুরটাই কাটল পূর্ব মেদিনীপুরের এগরা মেলায়। একই মঞ্চে পাশাপাশি দেখা গেল যুযুধান দুই পক্ষকে।

উদ্বোধন হল পূর্ব মেদিনীপুরের ঐতিহ্যশালী এগরা মেলার। আর এই উদ্বোধন উপলক্ষে একই মঞ্চে পাশাপাশি দেখা গেল বিজেপি সাংসদ ও তৃণমূল বিধায়ককে। খোশ মেজাজে একে অপরের সঙ্গে আলাপ চারিতায় মাতলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ এবং তৃণমূল কংগ্রেসের এগরার বিধায়ক সমরেশ দাস।

আরও পড়ুন : নিজের কন্যাকে শ্লীলতাহানি, চিকিৎসক বাবার দিকে অভিযোগের তির খোদ ডাক্তার স্ত্রীর

বিজেপি সাংসদ ও তৃণমূল বিধায়ককে একমঞ্চে দেখেই অবশ্য জেলার রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পরে যায়। তবে এলাকার বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, "মেলা হল মিলনক্ষেত্র, মেলা আমাদের সংস্কৃতিকে মিলিয়ে দিয়েছে, তাই কুম্ভ মেলা ও গঙ্গাসাগর মেলায় বহু ভিড় হয়, এই মেলায় ভিন্ন দলের বিধায়ক এসেছেন, দেখে খুব ভাল লাগছে।"

আরও পড়ুন: শুরুর আগেই নজিরবিহীন ভাবে রদবদল জঙ্গিপুর পুলিশ জেলায়, সরানো হল নবনিযুক্ত পুলিশ সুপারকে

এই বিষয়ে এগরার তৃণমূল বিধায়ক সমরেশ দাসের বক্তব্য ছিল, "মেলা রাজনীতির জায়গা নয়, দিলীপ ঘোষ এলাকার সাংসদ, তিনি অতিথি, বিধানসভাতেও আমারা একসঙ্গে ছিলাম, সাংলসদ হিসাবে তাঁরই আগে বলার অধিুকার রয়েছে।"

একসময় বাংলার রাজনৈতিক নেতাদের সৌহার্দ্য সকলের নজর কাড়ত। কিন্তু সাম্প্রতিক অতীতে সেই ধারা প্রায় বিলুপ্ত। একে অপরের উপর কাঁদা ছোড়াছড়ি এখন নিত্য - নৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেই দলে রয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও। একাধিকবার তাঁকে সৌজন্যের সীমা পেড়োতে দেখা গেছে। তবে এগরা মেলায় সেই চিত্রটার বদল ঘটায় জেলার রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।