মৌলিককান্তি মণ্ডল, নদিয়া:  ছবিটা বদলাল না এবারও। বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর প্রতিবাদে বিজেপি-এর বনধে তেমন প্রভাব পড়ল না নদিয়ার কল্যাণীতে। দিনভর কার্যত সচল থাকল এলাকা। বাইক মিছিল করার অভিযোগে ছ'জন গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: ফের চোর সন্দেহে গণপিটুনি, বেঘোরে প্রাণ গেল মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তির

কল্য়াণীর গয়েশপুর পুরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা ছিলেন বিজয় শীল। বাড়ি বাড়ি রান্নার গ্যাস পৌঁছে দেওয়ার কাজ করতেন তিনি। এলাকায় পরিচিত ছিলেন বিজেপি সক্রিয় কর্মী হিসেবেও। রবিবার সকালে শশ্মানের কাছে একটি গাছে বিজয়ের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তৃণমূলের পরিকল্পনামাফিক খুনের অভিযোগ তুলেছেন রাজ্য বিজেপি নেতারা। গয়েশপুর থানায় বিক্ষোভও দেখান গেরুয়াশিবিরের কর্মী-সমর্থকরা।  মৃতের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের লোকেদের সঙ্গে দেখা করেন দলের নেতা শুভ্রাংশু রায়। দলের কর্মীর মৃত্যুর প্রতিবাদে সোমবার কল্যাণীতে বারো ঘণ্টার বনধের ডাক দিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু বনধে এলাকায় কার্যত কোনও প্রভাব পড়ল না বলেই চলে। সকালে রাস্তায় যান চলাচল ছিল স্বাভাবিক। এমনকী, বেলা গড়াতে খুলে যায় দোকানপাঠও। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহরে পুলিশি ব্যবস্থা ছিল চোখে পড়ার মতো। মোড়ে মোড়ে  টহল দিচ্ছিলেন পুলিশকর্মীরা।

আরও পড়ুন: সরকারি কাজে কাটমানি-কমিশনের হিসেব চেয়ে পড়ল পোস্টার, বর্ধমানের গলসিতে চাঞ্চল্য

উল্লেখ্য, দিন কয়েক বিজেপি কর্মীকে খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল হাওড়া বাগনান। সেবার এলাকায় বারো ঘণ্টার বনধের ডাক দেয় গেরুয়াশিবির। কিন্তু বনধে তেমন সাড়া মেলেনি। উল্টে বনধ সফল করতে বাগনানে গেলে আটক করা হয় বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁকে।