আমফানের ত্রাণ বিলিতে 'দুর্নীতি', বিডিও-র কাছে অভিযোগ জানাতে গিয়ে এবার 'হামলা'র মুখে পড়লেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। রেহাই পেলেন না মহিলা ও শিশুরাও! সংঘর্ষে তৃণমূলেরও বেশ কয়েকজন জখম হন। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে উত্তর ২৪ পরগণার সন্দেশখালির হাটগাছা গ্রাম পঞ্চায়েতে এলাকায়। বসিরহাট হাসপাতালে ভর্তি বারোজন।

আরও পড়ুন: খোদ তৃণমূল বিধায়কের বাড়িতে দুঃসাহসিক চুরি, প্রশ্নের মুখে এলাকার নিরাপত্তা

গত মাসের শেষের দিকে ঘুর্ণিঝড় আমফানে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় গোটা রাজ্যে। বাদ যায়নি কলকাতাও। ঝড়ে যাঁদের ঘরবাড়ি ভেঙেছে, তাঁদের জন্য ত্রাণ বিলির ব্যবস্থা করেছে সরকার। আর তা নিয়েই যত গন্ডগোল। ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছেন বিজেপি। রাজ্যে বিভিন্ন প্রান্তে পথে নেমেছেন গেরুয়াশিবিরের কর্মী-সমর্থকরা।

অভিযোগ, শুক্রবার রাতে যখন সন্দেশখালি এক নম্বর ব্লকের বিডিও-র কাছে ত্রাণ নিয়ে অভিযোগ জানাতে যান, তখন বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালানো হয়। রড-লাঠি নিয়ে অতর্কিতে হামলা চালান স্থানীয় তৃণমূল কর্মী-সমর্থক। এমনকী, প্রতিবাদ করতে গেলে মহিলা ও শিশুদেরও রেয়াত করেনি হামলাকারীরা। বেধড়ক মারধর করাই শুধু নয়, মহিলাদের শ্লীলতাহানি করা হয় বলেও অভিযোগ। এরপরই দু'দলের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে বেঁধে যায়। ঘটনায় মহিলা ও শিশু-সহ জখম হন ১২ জন। সকলকেই ভর্তি করা হয় বসিরহাট মহকুমা হাসপাতালে।

আরও পড়ুন: জোম্যাটোতে চিনা কোম্পানির শেয়ার, জার্সি পুড়িয়ে কাজ ছাড়ল ৬৫ জন

এখানেই শেষ নয়। শনিবার সকালে আহতদের দেখতে হাসপাতালে গেলে, ফের মণ্ডল সভাপতি-সহ বিজেপি স্থানীয়দের নেতার উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে।  সন্দেশখালি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বিজেপি ও তৃণমূল উভয় পক্ষই। স্রেফ আমফান ত্রাণে দুর্নীতি নাকি পুরনো শক্রতার জেরে এই ঘটনা ঘটল, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।