এবার সিএএ নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠল হালিশহর।  তৃণমূল-বিজেপি সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উত্তাল চেহারা নেয়  এলাকা। বিজেপির অভিযোগ, সিএএ নিয়ে লিফলেট বিলি করতে গেলে তাদের উপর আক্রমণ করে তৃণমূল। পরিস্থিতি সামাল দিতে লাঠিচার্জ করতে হয় পুলিশকে। 

সবত্রের খবর,শনিবার হালিশহর পৌরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কলোনি এলাকায় সিএএ-র সমর্থনে নামে বিজেপি।  গেরুয়া ব্রিগেডের অভিযোগ, শনিবার বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করতে গেলে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরদের হাতে আক্রান্ত হন শুভ্রাংশু। এ বিষয়ে বীজপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে পুলিশের দুর্ব্যবহারের শিকার হন তিনি। 

শুভ্রাংশু বলেন, এলাকায় বিজেপি  প্রচারে নামলেই কর্মীদের ওপর হামলা  করা হচ্ছে। বাড়ি বাড়ি প্রচার  করতে গেলে কাসর ঘণ্টা বাজাচ্ছে তৃণমূলের লোকজন। মিছিলে ধাক্কা দিয়ে ঝগড়ার প্ররোচনা দেওয়া হচ্ছে। এভাবে চলতে পারে না। সেকারণে পুলিসের কাছে অভিযোগ জানাতে  গিয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু সেখান  থেকেও হতাশ হয়ে ফিরতে হয় তাদের। কারণ ২৭ তারিখের আগে এলাকায় প্রচারের অনুমতি দিতে পারবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন থানার পুলিশ কর্তা। তবে ২৭ জানুয়ারির পরও মচিলের অনুমতি পাওয়া যাবে কিনা তা নিয়েও নিশ্চিত কিছু বলেননি তিনি।

বিজেপির অভিযোগ,তৃণমূল সিএএ বিরোধী প্রচার করতে পারলেও বিজেপি সমর্থনে প্রচার করতে পারছে না। মিছিলের অনুমতি দিচ্ছে না পুলিশ। এ বিষয়ে শুভ্রাংশু বলেন, দেখে মনে হচ্ছে ,পুলিশ রাজ্য় সরকারের ডোবারম্যান হয়ে গেছে। আমিও দু বার এলাকায় বিধায়ক নির্বাচিত হয়ে এসেছি। মানুষের আশীর্বাদ থাকলে আাগামী দিনেও বীজপুর থেকে বিধায়ক হব।  তখন এই পুলিশকর্তাদের হিসেব হয়ে যাবে।