লকডাউনের দিনে চলল গুলি।  গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এক মহিলা বিজেপি কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে, দক্ষিণ পরগনা বিষ্ণুপুর থানা রঘুদেবপুর গ্রামে। গুলিবিদ্ধ গৃহবধূর পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বিজেপি করে বলেই তাদের বাড়ির উপর এই আক্রমণ। অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে। 

কলকাতার সেরা পাঁচ রাস্তার খাবার, না খেলে জীবন বৃথা আপনার

আক্রান্ত  মহিলার অভিযোগ, কেবল বিজেপি করার 'অপরাধে' এলাকার বেশ কিছু বাড়ি ভাঙচুর করে তৃণমূলের লোকজন। খোঁজ করা হয় ওই মহিলার স্বামীর। এলাকায় সক্রিয়  বিজেপি  কর্মী হিসেবেই পরিচিত আক্রান্ত মহিলা ও তাঁর স্বামী। স্থানীয়রা জানান, গৃহবধূর স্বামী অরুণ নস্কর বিজেপির বুথ কমিটির দায়িত্ব সামলান। ওনার স্ত্রী  রাধারানি নস্কর দলের  কোনও কমিটির  হিসাবরক্ষকের দায়িত্বে ছিলেন । 

'দিদির ছবি নেই দাদার পোস্টারে', অনুপ্রেরণা ছাড়াই এগোচ্ছেন শুভেন্দু

অভিযোগ, সোমবার সকাল ১১টা নাগাদ তৃণমূলের দুষ্কতীরা আগ্নেয়াস্ত্র-সহ তাদের বাড়িতে হামলা চালায়। প্রথমে রাধারানি নস্করকে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে মারধর করে হামলাকারীরা। মহিলা পাল্টা ঝাঁটা ছুড়ে মারতেই গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা।  গুলি লাগে মাথার পিছনে। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন রাধারানি নস্কর। বেগতিক দেখে পালিয়ে যায় সশস্ত্র দুষ্কৃতীরা।

"

আওয়াজ পেয়ে ছুটে ছুটে আসে এলাকার মানুষজন।  তারাই মহিলাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি বেসরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যান। অবস্থার অবনতি দেখে চিকিংসকেরা কলকাতার নিয়ে  যাওয়ার কথা বলেন। এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। এদিকে ঘটনাস্থলে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ পৌঁছলে পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় মানুষজন। । ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন বিষ্ণুপুর থানার স্পেশাল টিম ও বিষ্ণুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক মৈনাক বন্দ্য়োপাধ্যায়-সহ ডিএসপি জীবনেশ রায়।