শরীরের একাধিক ক্ষতচিহ্ন। ডিয়ার পার্কে মিলল তিনটে হরিণের মৃতদেহ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বাঁকুড়ার মুকুটমণিপুরে। হরিণের মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। বনদপ্তরের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন পশুপ্রেমীরা।

আরও পড়ুন: জঙ্গলে বাছুরের ক্ষতবিক্ষত দেহ, ফের বাঘের আতঙ্ক ঝাড়গ্রামে

বাঁকুড়া মুকুটমণিপুরের পুখুরিয়া ডিয়ার পার্ক। পার্কটি চারদিকে উঁচু পরিখা দিয়ে ঘেরা। পার্কে ঘুরে বেড়ায় কমপক্ষে ১০০টি হরিণ। তাদের দেখে আনন্দ পান পর্যটকরাও। বৃহস্পতিবার সকালে ডিয়ার পার্কে কাছে তিনটি হরিণের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কোনটার পেটে তো কোনটার আবার পায়ে ছিল গভীর ক্ষত। ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তড়িঘড়ি খবর দেওয়া হয় বনদপ্তরে। মৃতদেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছেন বনকর্মীরা।

 

প্রাথমিক তদন্তে বনদপ্তরের অনুমান.কোনও হিংস্র কুকুরে আক্রমণের মারা গিয়েছে ওই তিনটি হরিণ।  কিন্তু ডিয়ার পার্কটি চারিদিকে উঁচু পরিখা দিয়ে ঘেরা। তাহলে হরিণগুলি বেরোল কী করে? প্রশ্ন তুলেছেন পশুপ্রেমীরা। তাঁদের বক্তব্য, ডিয়ার পার্কে নজরদারির অভাব ও বনদপ্তরের গাফিলতির কারণেই এমন ঘটনা ঘটেছে। এমনকী,হরিণের মৃত্যুর নেপথ্যে চোরাশিকারীদের যোগসাজশের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না স্থানীয় বাসিন্দারা।