প্রকাশ্য রাস্তার উপর মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল। রাস্তায় দাঁড়িয়ে এক যুবককে এলোপাথাড়ি ধারালো অস্ত্রের কোপ। পরে তাঁকে রাস্তার ধারে ছুঁড়ে ফেলে দেয় দুষ্কৃতীরা। পরিবারের লোকেরা তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করলে মৃত বলে ঘোষণা করে চিকিৎসকরা। মর্মান্তিক এই ঘটনার জেরে উত্তেজনা ছড়াল দক্ষিণ ২৪ পরগনার মগরাহাটে।

আরও পড়ুন-দিনমজুরের ছেলেকে'অপহরণ' করে ৭ লক্ষ মুক্তিপণ দাবি, পঞ্চায়েত সদস্যের শিশু অপহরণে রহস্য

জানাগেছে, পেশায় গাড়ি চালক বছর আঠাশের তন্ময় দাসের সঙ্গে বচসা হয়েছিল এলাকারই একদল যুবকের সঙ্গে। ঝিনকির হাটের ঘটনায় সেই মুহূর্তে স্থানীয় বাসিন্দারা উপস্থিত থেকে মিমাংসা করে সমস্যা মিটিয়ে দেয়। এরপর  অন্যান্য় দিনের মতো বৃহস্পতিবারও কাজ শেষ করে সাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিল তন্ময়। সেসময় রাস্তায় তাঁর পথ আটকায় জিয়ারুল শেখ ও আসাদুল শেখ নামে দুই যুবক তার দলবল। তন্ময়কে একা পেয়ে তাঁর উপর এলোপাথাড়ি ধারাল অস্ত্রের কোপ দেয় দুষ্কৃতীরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাস্তার পাশে জলাশয়ে ফেলে দেয়। ঘটনাটি বাড়ি থেকে কিছুয়া দূরে হওয়ায় পরিবারের লোকেরা খবর পেয়ে ছুটে আসে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করলে তন্ময়কে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন-থানার লকআপে আত্মঘাতী ধর্ষণে অভিযুক্ত যুবক, চাঞ্চল্য় বর্ধমানের কেতুগ্রামে

তন্ময় দাসকে খুনের অভিযোগ ওঠে জিয়ারুল ও আসাদুল শেখের বিরুদ্ধে। পুলিশে অভিযোগের ভিত্তিতে দুই জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতদের ডায়মন্ড হারবার আদালতে তোলা হলে এগারো দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত। তন্ময় পরিবারের একমাত্র ছেলে ছিল। ছেলে খুন হওয়ার পরিবারে শোকের ছায়া।