Asianet News BanglaAsianet News Bangla

বোলপুরের ভোলে বোম রাইস মিলে সিবিআই হানা, দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর অবশেষে খুলল মিলের দরজা

গোরু পাচার কাণ্ডের তদন্তে নেমে সিবিআই-এর হাতে গ্রেফতার হয় তৃণমূলের দুঁদে নেতা অনুব্রত মণ্ডল। এর পর থেকেই নানা ঘটনাক্রমের মাধ্যমে বারবার শিরোনামে উঠে আসে ভোলে বোম রাইস মিলের নাম। এবার বোলপুরের সেই ভোলে বোম রাইস মিলে পৌঁছল সিবিআই-এর ৪ সদস্যের প্রতিনিধি দল।

CBI has raided in bhole bom rice mil allegedly connected to the Anubrata Mondal in Birbhum
Author
kolkata, First Published Aug 19, 2022, 11:39 AM IST

বোলপুরের ভোলে বোম রাইস মিলে সিবিআই হানা। বীরভূমে অনুব্রতর আরও সম্পত্তির হদিশ মিলল। ভোলে বোম রাইস মিল ছাড়াও বীরভূমে অনুব্রতর নামে একাধিক রাইস মিল রয়েছে বলে দাবি সিবিআই আধিকারিকদের। যদিও রাইস মিল বন্ধ থাকায় তদন্তের কাজে বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে বলে অভিযোগ সিবিআই-এর। 
গোরু পাচার কাণ্ডের তদন্তে নেমে সিবিআই-এর হাতে গ্রেফতার হয় তৃণমূলের দুঁদে নেতা অনুব্রত মণ্ডল। এর পর থেকেই নানা ঘটনাক্রমের মাধ্যমে বারবার শিরোনামে উঠে আসে ভোলে বোম রাইস মিলের নাম। এবার বোলপুরের সেই ভোলে বোম রাইস মিলে পৌঁছল সিবিআই-এর ৪ সদস্যের প্রতিনিধি দল। তবে আধ ঘন্টার বেশি সময় হয়ে গেলেও খোলেনি রাইস মিলের দরজা। এমনকী রাইস মিলের কর্মীদের সিবিআই আধিকারিকদের কথা হওয়া সত্ত্বেও খোলা হয়নি রাইস মিলের দরজা। ফলে বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছিল।  তদন্তের কাজ। প্রায় এক ঘন্টারও বেশি সময় ধরে রাইস মিলের বাইরেই অপেক্ষা করার পর রাইস মিলের এক কর্মী বাইরে এলেও মিলে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি সিবিআই আধিকারিকদের। অবশেষে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর ভেতর থেকে খোলা হয় রাইস মিলের গেট। দীর্ঘ ৪০-৫০ মিনিট অপেক্ষা করার পর রাইস মিলে প্রবেশ করল সিবিআই-এর গাড়ি।  
সূত্রের খবর বীরভূমে একাধিক মিলের মালিক অনুব্রত। এই মিলগুলির মাধ্যমে কালো টাকা সাদা করা হত কী না বা গোরু পাচার কাণ্ডে টাকা হাত বদল হয় হয় এই মিলগুলিতে আসত কী না সেই বিষয় তদন্তের জন্য এই মিলগুলিতে হানা দেয় সিবিআই। 
প্রসঙ্গত, গোরু পাচার কাণ্ডে অনুব্রতর বাড়িতে তল্লাশি চালায় সিবিআই। তাঁর বাড়ি থেকে প্রাপ্ত নথি থেকে জানা গিয়েছিল বিপুল সম্পত্তির মালিক অনুব্রতর মেয়ে সুকন্যা মণ্ডল। এই অভিযোগের তদন্ত চলাকালীন বুধবার হাইকোর্টে সুকন্যার নামে টেট না দিয়ে প্রাথমিক স্কুলে চাকরি পাওয়ার অভিযোগ দায়ের করা হয়। এরই মধ্যে আবার তাঁর একটি ফেসবুক প্রোফাইল থেকে জানা যায় একই সঙ্গে দুটি চাকরি করেন তিনি একটি সরকারি অপরটি বেসরকারি। শুধু সুকন্যাই নন অনুব্রতর ভাইপো সহ কেষ্ট ঘনিষ্ঠ আরও ছয় জনের বেআইনিভাবে চাকরি পাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

আরও পড়ুনঅনুব্রত মণ্ডলের কন্যা সুকন্যা নাকি পড়ুয়াদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন, দাবি তার সহকর্মীর 


কার নেতৃত্বে চলে এই রাইস মিল। কী ভাবে কাজ হয় এই মিলে? অনুব্রত মণ্ডলের কী ভূমিকা এই রাইস মিলে? কোনও ভাবে কি গোরু পাচারের টাকা এই মিলে ঘুকত? ইত্যাদি নানা বিষয় খতিয়ে দেখছে সিবিআই। 

আরও পড়ুনআপাতত স্বস্তি কেষ্ট-কন্যার, টেট সংক্রান্ত মামলায় হাজিরার নির্দেশ খারিজ করল আদালত

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios