সিবিআই-এর তলব মানেই হয়রানি। সারদা থেকে নারদা, সব তদন্তেই সিবিআই জেরার মুখোমুখি হওয়ার পরে প্রকাশ্যে এমন অভিযোগই করেছেন তৃণমূলের নেতা, মন্ত্রী এবং সাংসদরা। এবার কার্যত দলের উল্টো অবস্থান নিয়ে নারদা কাণ্ডে অভিযুক্ত প্রবীণ তৃণমূল নেতা এবং পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলে দিলেন, সিবিআই হয়রান করছে বলে মনে হয়নি তাঁর। 

নারদা কাণ্ডের তদন্তে সিবিআই-এর তলব পেয়ে এ দিন নিজাম প্যালেসে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার দফতরে যান সুব্রতবাবু। পরে তিনি নিজেই বেরিয়ে এসে জানান, নারদা তদন্তের জন্য গলার কন্ঠস্বরের নমুনা রেকর্ড করতেই এ দিন সিবিআই দফতরে হাজির হয়েছিলেন। সিবিআই হয়রান করছে কি না প্রশ্ন করা হলে সুব্রত বলেন,'আমার ক্ষেত্রে অন্তত সেরকম কিছু মনে হয়নি। তদন্ত করতে গেলে নিয়ম মতো যা যা করতে হবে, সেটাই সিবিআই করছে। তবে ভবিষ্যতে কী হবে, তা তো এখন বলতে পারি না।' এ দিন তাঁর আইনজীবীকে নিয়েই সিবিআই দফতরে যান সুব্রতবাবু। 

আরও পড়ুন- 'ভাইকে ডেকেছে, এর পর আমায় ডাকবে', আশঙ্কা প্রকাশ করে চ্যালেঞ্জ মমতার

আরও পড়ুন- আরও বিপাকে তৃণমূল সাংসদরা, এবার সিবিআই দফতরে প্রসূন, দেখুন ভিডিও

মাত্র কয়েকদিন আগে এই নারদা কাণ্ডের তদন্তেই সিবিআই দফতরে হাজিরা দিয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। সিবিআই-এর বিরুদ্ধে হয়রানির অভিযোগ তোলেন তিনিও। খোদ দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বার বার কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে দিয়ে তৃণমূল-সহ বিরোধীদের হয়রানির অভিযোগে সরব হয়েছেন। গত ২৮ অগাস্ট দলের ছাত্র সংগঠনের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকেও এই দাবি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ ছিল, তৃণমূল নেতাদের ডেকে পাঠিয়ে দলের গোপন তথ্য জানতে চাইছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। ফলে. সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের এই বক্তব্য নিঃসন্দেহে তাঁর দলকে অস্বস্তিতে ফেলবে। কয়েকদিনের মধ্যে তৃণমূল নেতা এবং মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার, সৌগত রায়দেরও সিবিআই-এর ডাকার কথা। ডাকা হয়েছে সদ্য বিজেপি-তে যোগ দেওয়া শোভন বন্দ্যোপাধ্যায়।