শীতের শুরুতে বড়দিনের উপহার পেল জঙ্গলমহল। নিজে হাতেই কেক তৈরি করে সংই কেক বাজারজাত করতে পারেন স্থানীয়রাই, সম্প্রতি ঝাড়গ্রামে এমনটাই প্রকল্প এবার নেওয়া হল স্বনির্ভর গোষ্ঠীর পাশে দাঁড়াতে। জঙ্গলমহলের স্ব-সহায়ক দলের ভূমিকন্যারা এবার বড়দিনের উপহার হিসেবে নিজের হাতে তৈরি কেক নিয়ে আসবেন জঙ্গলমহলের বাজারে। বড় দিনের আগেই বাজারে মিলবে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের হাতে তৈরি সুস্বাদু কেক। উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্পে মহিলাদের দেওয়া হচ্ছে এই প্রশিক্ষণ। 

আরও পড়ুনঃ বছর শেষেও বেহাল মেট্রো, কোন পর্যায় ইস্ট-ওয়েস্টের কাজ

একেই শীত কাল তার উপর সামনে বড়দিন। খুব তাড়াতাড়ি শিখে নিয়ে কেক তৈরির কাজ শুরু করেছেন মহিলারা। শুধু কী শীত কাল, এখন সারা বছর ধরেই জন্মদিন সহ বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে কেকের চাহিদা ব্যাপক। তাই এবার মহিলারা নিজেদের হাতে গড়া কেক বাজারে বিক্রি করে বাড়তি রোজগারের মুখ দেখতে চলছেন। স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মাহিলাদের পাশাপাশি অন্যান্য মহিলারাও কেক বানানোর প্রশিক্ষণে যুক্ত হয়ে আর্থিক লাভের মুখ দেখছেন। উৎকর্ষ বাংলার অন্তর্গত কেক তৈরির প্রশিক্ষণ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ৩ ডিসেম্বর থেকে ঝাড়গ্রাম শহরের বিদ্যাসাগর পল্লিতে প্রশিক্ষণ শুরু হয়। দুটি ব্যাচে মোট ৩০ জন মহিলা প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। এদের মধ্যে ৮ জন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলা রয়েছেন। বাকিরা বিভিন্ন জায়গা থেকে এসে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। মোট ষাট দিনের কেক তৈরির প্রশিক্ষণ হবে। প্রতিদিন ৪ ঘন্টা করে চলছে প্রশিক্ষণ। প্রশিক্ষণ শেষে এই সব মহিলারা নিজেরাই তৈরি করতে পারবেন বিভিন্ন ধরনের কেক। সেই কেক বিক্রি করে অতিরিক্ত রোজগারের মুখ দেখতে পারবেন। প্রশাসনিক আধিকারিকদের বক্তব্য মহিলারা প্রশিক্ষন শেষে যখন নিজেরাই তৈরি করবেন কেক, তখন সেই কেক বাজারে বিক্র করে বেশ ভালই লাভ করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ বর্ষ শেষে জানান দিল শীত, কলকাতার তাপমাত্রা এখনও স্বাভাবিকের নিচে

উল্লেখ্য ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সরকারির বিভিন্ন প্রকল্পে মহিলা সহ পুরুষদের স্বনির্ভরতার লক্ষে কর্মমুখি নানা প্রশিক্ষন দেওয়া হচ্ছে। যাতে বিকল্প রোজগার করে গ্রামের মানুষেরা নিজেদের পায়ে দাঁড়িতে পারেন, তার জন্য প্রশাসন বিভিন্ন উদ্যোগ নিচ্ছে। প্রত্যন্ত গ্রামগুলিতে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকেরা পৌছে যাচ্ছেন। তাঁরা জেনে নিচ্ছেন এলাকার মানুষেরা কী ধরনের কাজ করতে ইচ্ছুক। সেই অনুযায়ী তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করছে প্রশাসন। আর এবার শীত পড়তেই মহিলাদের কেক তৈরির প্রশিক্ষণ শুরু হল। প্রশিক্ষণ শেষে মহিলার এর থেকে রুজিরোজগার করতে পারবেন বলে আশাবাদী প্রশাসনিক আধিকারিকেরা।।