লোকসভার নির্বাচনের প্রাক্কালে উত্তরবঙ্গ নিয়ে একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল বিজেপি। সবাইকে নাগরিকত্ব প্রদান সহ চা শিল্পের উন্নয়ন। কিন্তু ভোটের পর সেই সব প্রতিশ্রুতি বিজেপি একটি পূরণ করেনি বলে দাবি করলেন তৃণমূল নেত্রী। বিজেপি তোপ দিয়ে বলেন, শুধু ভোটের সময় বিজেপিকে দেখা যায়। বিজেপি একটি ভাঁওতাবাজের দল বলেও কটাক্ষ করেন মমতা।

আরও পড়ুন-.রাজ্য নয়, এবার থেকে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তায় শুভেন্দু, বুলেট প্রুফ গাড়ি সহ দেখভালের দায়িত্বে এসআইবি

উত্তরবঙ্গ সফরের গিয়ে মঙ্গলবার জলপাইগুড়িতে সভা করেন তৃণমূল নেত্রী। জেলার এবিসিসি ময়দান থেকে বিজেপি কেন্দ্রীয় নীতির বিরোধিতা করে তীব্র কটাক্ষ করেন মমতা। এছাড়াও, বাংলায় বিধানসভা ভোটের আগে ধর্মীয় মেরুকরণ নিয়েও গেরুয়া শিবিরকে একহাত নেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ''বিজেপি নতুন করে একটা ধর্ম এনেছে। সেটা হল দাঙ্গা ধর্ম-ঘৃণ্য ধর্ম-কুৎসার ধর্ম। এভাবে ওরা বাংলাকে ধ্বংস করতে চায়। বাংলার মেরুদণ্ড ভেঙে ফেলতে চায় বিজেপি। কোনও ভাবেই বিজেপির এই আচরণ বরদাস্ত করবেন না। সকলে মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে হবে। বিজেপি ক্ষমতায় এলে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি তৈরি হবে''।

আরও পড়ুন-'আমি পদের লোভী নই', হলদিয়া থেকে 'বহিরাগত' তত্ত্ব নিয়ে তৃণমূলকে কী বার্তা শুভেন্দুর

অন্যদিকে, ডায়মন্ড হারবারে জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা প্রসঙ্গেও বিজেপিকে কটাক্ষ করেন মমতা। তিনি বলেন, ''রাজ্যে আসতে গেলে কিছু প্রোটোকল মেনে চলতে হয়। একটা নেতার পিছনে পঞ্চাশটা গাড়ি। তার পিছনে গুন্ডা বাহিনী বাইকে করে যাচ্ছে। নিজেরাই হামলা করে রাজ্যকে দোষ দিচ্ছে। আবার, রাজ্য পুলিশকেও দিল্লিতে ডাকছে কেন্দ্রীয় সরকার''। অন্যদিকে, বিজেপির চাকরির প্রতিশ্রুতি কার্ড ইস্যুকেও কটাক্ষ করেন মমতা। তিনি বলেন, ''প্রতিশ্রুতি বলে কিছুই হয় না। ওটা পুরোটাই প্রতারণা ও মিথ্য়া''। এরপরই সভাস্থলে থাকা কেন্দ্রের প্রতিটি মানুষকে কেন্দ্রের দেওয়া একাধিক প্রতিশ্রুতির কথা মনে করিয়ে দেন মমতা।