মালদহে আদিবাসীদের গণবিবাহের আসরে হাজির মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং। বিয়ের আসর তো ঘুরে দেখলেনই, পা  মেলালেন আদিবাসী নাচেও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কাছে পেয়ে উচ্ছ্বসিত পাত্র-পাত্রীর পরিবারের লোকেরা।

আরও পড়ুন: ভোটার আইডি কার্ডে কুকুরের ছবি, ঘটনায় ব্য়াপক চাঞ্চল্য মুর্শিদাবাদে

কী ব্যাপার? মাস খানেক আগের ঘটনা। আদিবাসীদের গণবিবাহের আসরকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রে চেহারা নেয় মালদহের আটমাইল এলাকায়। হিন্দুমতে বিয়ে দিয়ে আদিবাসীদের ধর্মান্তকরণের অভিযোগ ওঠে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের বিরুদ্ধে।  বিয়ের আসরেই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন ভিএইচপি ও ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যরা। সেই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, আদিবাসীদের গণবিবাহের আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সেইমতো বৃহস্পতিবার আদিবাসীদের গণবিবাহের আসর বসে মালদহের গাজোলে।

আরও পড়ুন: জঙ্গল থেকে ক্ষেত, খাবার নেই কোথাও, লোকালয়ে হাতির আতঙ্ক

ঘড়িতে তখন বেলা বারোটা। গাজোলে আদিবাসীদের গণবিবাহের আসরে আসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঞ্চ থেকেই তিনি ঘোষণা করেন, স্রেফ মালদহেই নয়,আগামী দিনে জেলার বিভিন্ন জেলায় আদিবাসীদের গণবিবাহের আয়োজন করা হবে। গণবিবাহের আসর বসবে উত্তরবঙ্গের চা-বাগানেও। এরপর মঞ্চ থেকে নেমে সোজা বর-কনেদের কাছে চলে যান মুখ্যমন্ত্রী। আয়োজন কেমন হয়েছে? ঘুরে দেখেন তিনি। নিজে হাতে কনের গলার হার ও বরের টোপরও ঠিক করে দেন, উপহার তুলে দেন নবদম্পতিদের হাতে। এমনকী, আদিবাসীদের মহিলাদের সঙ্গে নাচেন মুখ্যমন্ত্রীও।