মৌলিককান্তি মণ্ডল, নদিয়া-বাড়ির মধ্যে স্বামী-স্ত্রীর জোড়া মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে উত্তেজনা ছড়াল এলাকায়। দরজা ভেঙে পরিবারের সদস্য ঘরের মধ্যে ঢুকে দেখেন ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে স্বামীর মৃতদেহ। অন্যদিকে, মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে তাঁর স্ত্রীও। তিনি অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন বলে জানিয়েছেন পরিবারের অন্য সদস্যরা। এই ঘটনার জেরে রহস্য দানা বেঁধেছে। 

আরও পড়ুন-কাজ পাইয়ে দেওয়ার নামে 'প্রতারণা', বনগাঁয় এসে টাকা ও মোবাইল খোয়াল কল্যাণীর যুবক

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার শান্তিপুরে। জানাগেছে, শান্তিপুর পুরসভা এলাকার ২২ নম্বর ওয়ার্জের কারিগরপাড়ার বাসিন্দা দিলরুবা ইয়াসিনের বাড়িতে জোড়া দেহ উদ্ধার হয়। স্থানীয় সূত্রে খবর, শান্তিপুরের মালঞ্চ এলাকার বাসিন্দা সাবির শেখের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল গত এক বছর আগে। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই স্বামীর মায়ের সঙ্গে সাবিরের স্ত্রীর বাকবিতণ্ডা লেগেই থাকত। কয়েকদিন আগে সাবির শেখ তাঁর শ্বশুরবাড়ি দিলরুবা ইয়াসিনের বাড়িতে আসে। বুধবার রাতে স্বামী-স্ত্রী একসঙ্গে ঘুমিয়েছিল। কিন্তু দরজা না খোলায় ডাকাডাকি শুরু করে পরিবারের লোকেরা। পরে দরজা ভেঙে ঘরের ভিতর জোড়া মৃতদেহ দেখতে পান তাঁরা।

আরও পড়ুন-'দুই শতক ধরে পাহাড়ে পঞ্চায়েত নির্বাচন নেই, এর স্থায়ী সমাধান কেন্দ্রের কাছে', মন্তব্য রাজ্যপালের

স্বামী-স্ত্রীকে মৃত অবস্থায় দেখে উত্তেজনা দেখা দেয় এলাকায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছায় শান্তিপুর থানার পুলিশ। পুলিশ দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। পরিবারের দাবি,অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে খুন করে পরে নিজে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছে স্বামী। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে শান্তিপুর থানার পুলিশ।