অবশেষে বাংলার পূজোর মরশুম।  জানি রীতিমতো চিন্তার ভাঁজ পড়ে ছিল গুণীজনদের কপালে। করো না পরিস্থিতির মধ্যেই কিভাবে এই উৎসবের আমি মানুষকে বিপদে ফেলতে পারে তা নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ শুরু হয়েছিল করোনার গোড়া থেকে।  তুমি বেড়েছিল কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা। বর্তমানে যা চার লক্ষের কোটায় পৌঁছেছে। তবে পুজোর সময় সেই ধাক্কায় যে মানুষ সামলে উঠবে তাম এককথায় স্বপ্নের অতীত। একে একে সব পূজা-পার্বণের পালা এবার শেষের পথে। এমন পরিস্থিতিতে খানিক হলেও স্বস্তিতে বাংলা।

কমলো দৈনিক সংক্রমণের হার। সম্প্রতি খুলে গিয়েছে লোকাল ট্রেনও, বাস ট্রাম সবেতেই বেসামাল উপচে পড়া ভিড় চোখে পড়েছে। এমনই পরিস্থিতিতে বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে তার বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই সতর্কতার তুঙ্গে রাখতেই তৎপর প্রশাসন। গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩০১২ জন। কয়েকদিন আগেও যে চার হাজারের কোথায় ছিল।
২৪ ঘন্টায় রাচি মৃত্যু হয়েছে 53 জনের। বর্তমানে করোনা রোগীর সংখ্যা চার লাখের কাছে পৌঁছাল।  গত কয়েকদিন ধরেই সুস্থতার হার রয়েছে চার হাজারের ওপর। এখনো পর্যন্ত রাজ্যে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৭৭১৪। 

 

শুধুমাত্র কলকাতার বুকে গত ২৪ ঘন্টা আক্রান্ত হয়েছে ৭১৮ জন। ১৪ জনের মৃত্যু ঘটেছে একদিনে। সব মিলিয়ে এখন আশার আলো দেখছে রাজ্য। গোটা দেশে কিন্তু পরিসংখ্যানটি ঠিক তেমনই ধীরে ধীরে কমে আসছে করোনা সংক্রমনের হার। এমন সময়ে সামাজিক দূরত্ব নিয়ম মেনে চলতে পারলেই এ করোনার কবল থেকে অনেকাংশে মুক্তি পাবে সাধারণ মানুষ।