ফের সিএএ, এনআরসি নিয়ে দিদিভাই-মোদীভাই তত্ত্ব খাড়া করলেন সিপিএমের পলিটব্যুরো নেতা মহম্মদ সেলিম। বাম নেতার অভিযোগ  তৃণমূল-বিজেপি গোপন আঁতাত করে চলছে। তাই নির্বাচনের আগে রাজীব কুমার নিয়ে নাটক হয়েছে। কিন্তু নির্বাচন মিটতেই রাজীব কুমার প্রসঙ্গ হাওয়া হয়ে গেছে। 

 আজ সিপিআইএমের একশো বছর পূর্তিতে পুরুলিয়া শহরের রাস মেলা ময়দানে আয়োজিত  হয় জনসভা। সেই জনসভায় প্রধান বক্তা ছিলেন সিপিআইএম নেতা মহম্মদ সেলিম। পুরুলিয়া জেলা সিপিআই এম আয়াজিত  পুরুলিয়া শহরের রাস মেলা ময়দানে সমাবেশে যোগ দিতে পুরুলিয়া জেলা সিপিএমের উদ্যোগে এদিন এই সম্মেলনে যোগ দিতে বান্দোয়ান থেকে দুশোর ও বেশি মহিলা পায়ে হেঁটে পুরুলিয়ায় আসেন। 

এদিনের সম্মেলনে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস‍্য মহম্মদ সেলিম ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়া লোকসভার প্রাক্তন সাংসদ বাসুদেব আচারিয়া, অমিয় পাত্র সহ জেলার সি পি আই এমের অনান্য নেতৃত্ব। উল্লেখ্য এদিন মহম্মদ সেলিম বক্তব‍্য রাখতে গিয়ে বলেন রাজ‍্য ও কেন্দ্রের সরকার দেশে বেকার সমস‍্যার সমাধান করতে ব‍্যর্থ, দ্রব‍্য মূল‍্য বৃদ্ধি মানুষকে চরম হতাশ করে তুলেছে। দেশে এনআরসি বিল আরও ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি ডেকে আনবে। অসমে যা পরিস্থিতি ঘটেছে তা পশ্চিম বাংলায় ঘটতে দেওয়া যাবে না।
 
সেলিম বলেন, রাজ‍্য ও কেন্দ্রীয় সরকার নাটক শুরু করেছে। নির্বাচনের আগে রাজীব কুমারকে নিয়ে চোর পুলিশ খেলা করেছিল। নির্বাচন শেষ, তারপর রাজীব কুমার নাটক শেষ। রাজ্য় রাজনৈতিক মহলের মতে, এক সময়ের লাল দুর্গ জঙ্গলমহল পুরুলিয়ায় তাদের পুরনো জমি ফিরে পেতে মরিয়া বামেরা। পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে লোকসভা নির্বাচনে তাদের হাইটেক প্রচার না থাকলেও প্রচারের স্লোগানই ছিল"ফেরাতে হাল আসুক লাল"।আর এই স্লোগানকে সামনে রেখে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে লোকসভা ভোটে তৃতীয় স্থানে থেকেছে বামফ্রন্ট। এখনও জঙ্গলমহলের বান্দোয়ান, বলরামপুর,বরাবাজার, মানবাজার পাড়া, ঝালদা ১নম্বর ব্লকের মাঠারি খামার সহ জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে সিপিআইএমের ভোট ব্যাঙ্ক অটুট রয়েছে বলে দাবি নেতৃত্বের।