শিশুর মাথা গানপয়েন্টে রেখে ভয়াবহ ডাকাতির ঘটনায় চাঞ্চল্য এলাকায়। সোনার চেন, আংটি সহ একাধিক অলংকার নিয়ে চম্পট দিল দুষ্কৃতীরা। ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার ভীমপুর থানা এলাকায়। 

দোলেও বেরঙা জীবন, সময় মতো বেতন নেই ইএসআই হাসপাতালে

সূত্রের খবর,সোমবার রাতে নাতনিদের সঙ্গে বসে টিভি দেখছিলেন ভীমপুরের নতুনপাড়ার বাসিন্দা রণজিৎ বিশ্বাস। অভিযোগ,হঠাৎই বাড়ির ভিতরে জনা পাঁচেক দুষ্কৃতী ঢুকে শিশুদের মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ধরে। নিমেষেই বাড়ির সবাইকে আটকে নগদ টাকা ও গহনা নিয়ে চম্পট দেয় তারা। রাতে খবর জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে ভীমপুর থানার পুলিশ।

করোনা-সচেতনতায় পার্কে মিমি, বাচ্চাদের সঙ্গে খেলতে খেলতেই দিলেন সুরক্ষার পরামর্শ

পরিবারের দাবি, দুষ্কৃতীরা কয়েক লক্ষ টাকার সামগ্রী নিয়ে গিয়েছে।মঙ্গলবার সকালে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এই ঘটনার পিছনে কারা জড়িত তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। খোয়া যাওয়া সামগ্রী উদ্ধারে তদন্ত শুরু করেছে ভীমপুর থানার পুলিশ। ঘটনার  পর থেকেই আতঙ্কে দিন কাটছে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের। এখনও ঘটনার কথা মনে পড়লে গা শিউড়ে উঠছে তাদের। 

গরম বাড়লেই করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি, বলছেন চিকিৎসকরা

এলাকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন, অতীতে ঘরে ঢুকে ডাকাতরা পরিবারের ছোট সদস্যকে নিশানা করত বলে শুনেছি। আজকের দিনেও এই ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে শুনে অবাক হচ্ছি। ঘটনার সঙ্গে পরিচিত কেউ জড়িত আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়েছে পরিবারের সবাইকে।