নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বাড়ি বাড়ি প্রচারে গিয়ে তৃণমূলের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী এবং রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী। বিক্ষোভের জেরে পরিস্থিতি এতাই উত্তপ্ত আঁচ এতটাই ছিল হয়ে ওঠে যে প্রচার বন্ধ রেখে ফিরে চলে যেতে হয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরের ইন্দিরা কলোনিতে। সাংসদের অবশ্য দাবি, গোটাটাই বিরোধীদের চক্রান্ত।  তাঁর দাবি, নাগরিকত্ব আইন নিয়ে তাঁর কথা বুঝেছেন মানুষ এবং তা সাদরে গ্রহণও করেছেন। 

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে দলীয় নেতা, কর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচারের নির্দেশ দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপি- র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। শীর্ষ নেতৃত্বের সেই নির্দেশকে কার্যকর করার লক্ষ্যে বিজেপি- র রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী বুধবার ইন্দিরা কলোনিতে বাড়ি বাড়ি প্রচারে যান। নাগরিকত্ব আইনের বিষয়ে বোঝাতে লিফলেট তুলে দেওয়া হয় সাধারণ মানুষের হাতে। 

আরও পড়ুন- তুলে নেওয়া হচ্ছে দার্জিলিং মেলের কানেক্টিং কোচ, আন্দোলনে নামলেন আইনজীবীরা

আরও পড়ুন- শান্তিপুরে তৃণমূল কর্মী খুনে বিধায়কের বিরুদ্ধে এফআইআর, আটক এক অভিযুক্ত

এদিকে এনআ সি ও নাগরিকত্ব আইন নিয়ে আতঙ্কিত রায়গঞ্জের বাসিন্দারা গত কয়েকদিন ধরেই আধার কার্ড সংশোধনের চেষ্টা করছেন। অনেকে আবার অন্যান্য নথির ভুল সমশোধনের চেষ্টা করছেন। তা নিয়ে বিভ্রান্তিও চরমে পৌঁছেছে। রাত থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আধার কার্ড সংশোধনের কাজ করতে গিয়ে জেরবার হচ্ছেন মানুষ। এরই মধ্যে বুধবার রায়গঞ্জ শহরের ২০ নম্বর ওয়ার্ডের ইন্দিরা কলোনিতে দেবশ্রী চৌধুরীর প্রচার যেন আগুনে ঘি ঢালে। এলাকায় কেন্দ্রীয়  মন্ত্রী পৌঁছতেই সাধারণ মানুষ ও তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকেরা তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। গো ব্যাক স্লোগান ওঠে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তারক্ষীরা অসহায় অবস্থার মধ্যে পড়ে যান। বিক্ষোভে সামনের সারিতে ছিলেন মহিলারা। তাঁদের সামলাতে হিমশিম খেতে  হয় নিরাপত্তা কর্মীদের। বিক্ষোভ সামাল দিতে ব্যর্থ হন কেন্দ্রীয়  মন্ত্রী ও তাঁর দলের নেতা কর্মীরা। প্রচার বন্ধ করে দিতে বাধ্য হন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী।  কার্যত এলাকা ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য হন তিনি। 

এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, জয়ী হওয়ার পর এই প্রথম মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরীকে এলাকায় দেখা গিয়েছে। যেসব প্রতিশ্রুতি তিনি দিয়েছিলেন, তার একটিও পূরণ করেননি। সকালবেলা রায়গঞ্জ থেকে কলকাতায় আসার ট্রেনও চালু হয়নি। মন্ত্রী অবশ্য দাবি করেছেন, মার্চ মাসের মধ্যেই সেই প্রতিশ্রুতি পালন করা হবে। 

কমিউনিস্টরা প্রচার করছেন। সোনা চুরি করে ধরা পড়েছে সেরকম লোকও আছে। নামিয়ে দেবে গলা ধাক্কা দিয়ে, বিনা টিকিটের যাত্রী ছিল সব।