কচুয়ার পদপিষ্টের ঘটনায় মুখ্য়মন্ত্রীকে কটাক্ষ দিলীপের। হাসপাতালে গিয়ে সহানুভূতি আদায় করছেন মুখ্য়মন্ত্রী, কেন এরকম ঘটনা হল তা বলছেন না।
এদিন বিজেপির রাজ্য় সভাপতি বলেন,এই ধরনের জায়গায় মানুষ অত্য়ন্ত শ্রদ্ধা-ভক্তি নিয়ে যায়। তা সে তারকেশ্বর হোক, কচুয়া হোক বা গঙ্গাসাগর সব জায়গায় একটা আবেগ নিয়ে যায়। এখানে লক্ষ লক্ষ মানুষ পৌঁছবেন এটাই স্বাভাবিক। কচুয়ায় পুলিশি ব্যবস্থা পর্যাপ্ত ছিল না তো তাই এত বড় ঘটনা ঘটেছে। এত মানুষের প্রাণহানি হয়েছে।  শুধু আইন-শৃঙ্খলা নয় প্রশাসনের পুণ্যার্থীদের সুরক্ষার বিষয়টি দেখা উচিত ছিল। 

আরও পড়ুন : বাংলাতেই রয়েছে রাবড়ি গ্রাম, জন্মাষ্টমীতে দম ফেলার সময় নেই বাসিন্দাদের

আরও পড়ুন : মাত্রাতিরিক্ত ভিড়ে লোকনাথধামে পদপিষ্ট হয়ে মৃত একাধিক, আহত বহু
শুধু ক্ষতিপূরণ দিলে হয় না। মৃতদের পরিবারের দায়িত্ব সরকারের নেওয়া উচিত। হাসপাতালে যাওয়াটা কোনও সমাধান না, হাসপাতালে যেতে হচ্ছে কেন ? মুখ্য়মন্ত্রী কেন শুধু হসপিটালে ঘুরবেন।  এইভাবে সিম্প্যাথি আদায় করা যায়, কোনও সমাধান হয় না। গঙ্গাসাগর মেলা এদের ঘুরে দেখা উচিত। আজ জন্মাষ্টমীতে কামারহাটির সীতা রাম মন্দিরে পুজো দিয়ে একথা জানান দিলীপ ঘোষ। 
বৃহস্পতিবার রাত দুটোর পর মাত্রাতিরিক্ত ভিড়ে বেসামাল হয়ে পড়ে কচুয়ার লোকনাথধাম। ভিড় সামলাতে না পেরে পদপিষ্ট হন বহু। প্রবল বৃষ্টিতে এমনিতেই পিছল হয়েছিল এলাকা। পরেপায়ে চাপা পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন কমপক্ষে  ৩ জন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় বহু আহতকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতের সংখ্য়া ২৩ ছাড়িয়েছে। আহতদের দেখতে মেডিকেল কলেজ ও আরজিকরে গিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী। ইতিমধ্য়েই মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা ও গুরুতর আহতদের ১ লক্ষ টাকা দেওয়ার ঘোষণা করেছে রাজ্য় সরকার। এছাড়াও আহতদের ৫০ হাজার টাকা দেবে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ন :কেউ ছাড় পাবে না,চিদম্বরম প্রসঙ্গে মন্তব্য় দিলীপের