ব্যাট হাতে ইন্দোর পুরসভার এক অফিসারকে পিটিয়ে গ্রেফতার হয়েছিলেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ছেলে এবং মধ্যপ্রদেশের বিধায়ক আকাশ বিজয়বর্গীয়। এই ঘটনায় গোটা দেশের সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন তরুণ ওই বিজেপি নেতা। কিন্তু নিন্দনীয় এই ঘটনায় কার্যত আকাশ বিজয়বর্গীয়র পাশেই দাঁড়ালেন পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আকাশের পাশে দাঁড়িয়েই তিনি বলেন, 'হয়তো 'জোশের' বশেই এমন করে ফেলেছেন আকাশ।'

একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি সংবাদমাধ্যমে আকাশের দাদাগিরি নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়েই এমন দাবি করেছেন দিলীপবাবু। তিনি  বলেন, 'উনি একজন তরুণ নেতা। হয়তো 'জোশ' থেকেই এমন প্রতিক্রিয়া দিয়ে ফেলেছেন। এমনও হতে পারে, ওখানকার স্থানীয় কর্মীরা যে উত্তেজনা তৈরি করেছিলেন, তার জেরেই এই কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলেছেন আকাশ।'

আরও পড়ুন- বিজেপি-প্রভাবিত সংগঠনের নেতৃত্বে অগ্নিমিত্রা! টলিপাড়ার শিল্পীদের সমস্যা নিয়ে বৈঠকে প্রধান অতিথি দিলীপ

 দিলীপবাবু মনে করেন, বিজেপি বিধায়ক আকাশ নিজের উপর আর একটু নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারতেন কি না, সেটাও তর্কস্বাপেক্ষ বলেই তিনি মনে করেন। 

বাংলার বিজেপি সভাপতি এবং খড়্গপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ নিজেও গরমাগরম বক্তব্য রাখতে পছন্দ করেন। সেই কারণেই হয়তো ব্যাট হাতে সরকারি অফিসারকে পেটানোর মধ্যেও 'জোশ' খুঁজে পেয়েছেন তিনি। কিন্তু এমন মন্তব্য করে দিলীপবাবু নিজের রাজ্যেও দলীয় নেতা, কর্মীদের এই ধরনের দাদাগিরিতে উৎসাহিত করলেন কি না, সে প্রশ্নও উঠছে। তার উপরব আকাশ পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ছেলে। কেন্দ্রীয় নেতার সুনজরে থাকতেই দিলীপ আকাশের পাশে দাঁড়ালেন কি না, সে প্রশ্নও উঠছে। অন্যদিকে  সরকারি অফিসারকে পিটিয়ে চারদিন হাজতবাসের পরে জামিনে মুক্তি পেয়েছন আকাশ বিজয়বর্গীয়। 

তবে নিজের কৃতকর্মের জন্য খুব একটা আফসোস নেই আকাশ বিজয়বর্গীয়র। তাঁর দাবি, চোখের সামনে একজন মহিলাকে পুলিশ টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যাচ্ছে দেখে নিজেকে ঠিক রাখতে পারেননি তিনি। তবে ভবিষ্যতে তাঁকে এমন কিছু যাতে করতে না হয়, ভগবানের কাছে তিনি সেই প্রার্থনাই করবেন।