অধস্তন এক অফিসারকে হুমকি দিয়ে অপসারিত হতে হল নদিয়ার জেলাশাসক পবন কাদিয়ানকে। ডানকুনি পুরসভার এক্সিকিউটিভ অফিসার রিজওয়ান ওয়াহাবকে তিনি হুমকি দেন বলে অভিযোগ। সেই ঘটনায় তদন্তে পবন কাদিয়ানের দোষ প্রমাণিত হওয়ার পরেই তাঁকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল নবান্ন।

দিন কয়েক আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়। সেখানে ফোনে দুই ব্যক্তির মধ্যে কথোপকথন শোনা যায়। ফোনের একপ্রান্তে ছিলেন নদিয়ারজেলাশাসক পবন কাদিয়ান, অন্য প্রান্তে ছিলেন ডানকুনি পুরসভার এক্সিকিউটিভ অফিসার রিজওয়ান ওয়াহাব। জানা গিয়েছে, জুলাই মাসে রিজওয়ান ওয়াহাবকে ডানকুনি পুরসভা থেকে কৃষ্ণনগর পুরসভায় এক্সিকিউটিভ অফিসার হিসেবে বদলি করা হয়। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ে তিনি কাজে যোগ দেননি। 

আরও পড়ুন- সাংবাদিকের প্রাণ কাড়লেন আইএএস অফিসার, মত্ত অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে এই ঘটনা

আরও পড়ুন- 'কেস দেবেন না প্লিজ', সরকারি দফতরে বিক্ষোভ কুলটিতে

অভিযোগ, কেন তিনি কাজে যোগ দেননি, তা জানতে চেয়ে ডানকুনি পুরসভার ওই অফিসারকে ফোন করে রীতিমতো  হুমকি দেন নদিয়ার জেলাশাসক। সেখানে শোনা যায়, ডানকুনি পুরসভার এক্সিকিউটিভ অফিসার রিজওয়ান ওয়াহাবকে কাজে যোগ দিতে দেরি হওয়ার জন্য অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও উলঙ্গ করে পেটানোর হুমকি দিচ্ছেন কাদিয়ান। যদিও, এই অডিও টেপের সত্যতা যাচাই করেনি এশিয়ানেট নিউজ বাংলা। 

কিছুদিন আগে ওই অডিও টেপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেন রিজওয়ান ওয়াহাব। নবান্নতেও কর্মীবর্গ দফতরে অভিযোগ জানান তিনি। সূত্রের খবর, বিষয়টি মুখ্যমন্ত্রী পর্যন্ত পৌঁছয়। ঘটনার তদন্তে নেমে নদিয়ার জেলাশাসকের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রমাণ পায় স্বরাষ্ট্র দফতর। অন্যদিকে ডব্লিউবিসিএস অফিসাররাও নদিয়ার জেলাশাসকের এই আচরণে ক্ষুব্ধ ছিলেন। এর পরেই নদিয়ার জেলাশাসককে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই আইএএস অফিসারকে নবান্নে অর্থ দফতরের যুগ্ম সচিব পদে বদলি করা হয়েছে।  যদিও, অপসারণের বিষয়ে নদিয়ার জেলা শাসক পবন কাদিয়ানের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। নদিয়ার নতুন জেলাশাসক হিসাবে দায়িত্ব নেবেন হলদিয়া পুরসভার সিইও বিভূ গোয়েল। প্রশাসন সূত্রের খবর এমনই।