প্রাণঘাতী নেশা! বিড়ির আগুনে পুড়ে বেঘোরে মারা গেলেন এক বৃদ্ধ। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বারুইপুরে। এলাকায় শোকের ছায়া।

আরও পড়ুন: পঞ্চায়েত অফিসে লাগাতার তাণ্ডব দুষ্কৃতীদের, বিডিও-র কাছে লিখিত অভিযোগ কর্মীদের

মৃতের নাম বলাই প্রামাণিক। বাড়ি, বারুইপুর থানার এলাকা জগদীশপুর গ্রামে। স্ত্রী প্রয়াত, একটি ঘরে একাই থাকতেন আশি বছরের ওই বৃদ্ধ।  স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছে, বছর পাঁচেক আগে কোমরের হাড় ভেঙে যায়। তারপর থেকে আর হাঁটাচলা করতে পারতেন না তিনি। সর্বক্ষণ শুয়ে থাকতেন ঘরে। ধূমপানের অভ্যাস ছিল বলাইবাবুর। বিছানার পাশে রাখা থাকত বিড়ির প্য়াকেট ও দেশলাই। নেশার টানেই কি ঘটল বিপত্তি? 

আরও পড়ুন: কৃষি আইনের সমর্থনে বিজেপি-এর মিছিলে জনজোয়ার, মুখ্যমন্ত্রীকে তুলোধনা লকেটের

তখন গভীর রাত। আচমকাই বলাইবাবুর ঘর থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখেন পরিবারের লোক ও প্রতিবেশী। কিছুক্ষণ পর যখন আগুন নিভিয়ে ফেলেন তাঁরা, ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে। অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান ওই বৃদ্ধ। কীভাবে ঘরে আগুন লাগল? পরিবারের লোকেদের দাবি, রাতে বিড়ি খাওয়ার জন্য দেশলাই জ্বালিয়েছে বলাইবাবু। দেশলাইয়ের জলন্ত কাঠি থেকে কোনওভাবে বিছানায় আগুন লেগে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বারুইপুর থানার পুলিশ। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।