আশিস মণ্ডল, বীরভূম:  'রাজেশ ওঁরাং বীরভূমকে বীরভুমি করে দিয়ে গিয়েছেন।' শুক্রবার মহম্মদবাজারে গিয়ে লাদাখে শহিদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সঙ্গে ছিলেন স্ত্রীও।

আরও পড়ুন: হেমতাবাদকাণ্ড এবার হাইকোর্টে, সিবিআই তদন্তের দাবিতে মামলা দায়ের নিহতবিধায়কের স্ত্রীর

এদিন সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দেওয়া ১১ লক্ষ টাকার চেক রাজেশের মায়ের হাতে তুলে দেন রাজ্যপাল। তবে তাঁর এই সফরে সঙ্গী ছিলেন না বীরভূম জেলা শাসক মৌমিতা গোদারা কিংবা পুলিশ সুপার শ্যাম সিংহ। এনিয়ে গুরুত্ব দিতে চাননি রাজ্যপাল। তিনি বলেন, 'রাজেশ ওরাং দেশের জন্য আত্মবলিদান দিয়েছেন। রাজেশ বার্তা দিয়ে গেল দেশ তাঁর কাছে সবার আগে। কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এখানে শান্তিনিকেতন প্রতিষ্ঠা করে গিয়েছেন। রাজেশ ওরাং আমাদের কাছে আরও একটি দৃষ্টান্ত তৈরি করলেন। তিনি আমাদের প্রেরণা দিয়ে গিয়েছেন। রাজেশের মৃত্যুতে মা ছেলেকে হারিয়েছে, বোন দাদাকে হারিয়েছেন কিন্তু তার পরিবার আজ গোটা দেশকে পাশে পেয়েছেন।' 

 

 

শহিদ তপর্ণের ফাঁকে করোনা নিয়ে মানুষকে সচেতন থাকার বার্তা দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।  বলেছেন, 'আমার অনুরোধ নিজে বাঁচতে, পরিবাকে বাঁচাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। কিন্তু দুঃখ হয় শিক্ষিত সমাজ যখন স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলাফেরা করেন তখন। দেশে দিন দিন করোনা ভয়ঙ্কর হারে বাড়ছে। এই রোগকে খতম করতে হলে আমাদের সকলকে সচেতন হতে হবে।'