করোনার সংখ্যা গোপন করা নিয়ে রাজ্যে চলছে চাপানউতোর। এই নিয়ে রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে চলছে টুইটের লড়াই।  রীতিমতো মুখ্যমন্ত্রীকে করোনা নিয়ে তথ্য গোপনের কাজ বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তবে রাজ্যপালের এমন নির্দেশ বা আচরণের জন্য সোচ্চারও হয়েছে শাষক দল। এমনকী রাজভবনে পাঁচ পাতার চিঠিও পাঠান স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। 

আরও পড়ুন- টানা ২ সপ্তাহ পর খুলল হাওড়া হাসপাতাল, করোনাকে হারিয়ে কাজে যোগ দিলেন সুপার

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়ের সাফ কথা, বিআর আম্বেদকরের সংবিধান মানছেন না রাজ্যপাল। প্রতিনিয়ত জনগণ দ্বারা নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী ও সরকারের মন্ত্রীদের অপমান করে চলেছেন রাজ্যপাল। এবার এই বিষয়ে মুখ খুললেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন মুখ্যমন্ত্রীর কাজ ও তাঁর জনপ্রিয়তাকে হিংসা করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তিনি রীতিমতো রাজভবনকে বিপেজির দলীয় কার্যালয় বানিয়ে ফেলেছেন। আর সেখানে বসেই রাজনীতি করছেন তিনি। 

আরও পড়ুন- মদ বিক্রি থেকে গাড়ি চলাচল, একাধিক বিষয়ে ছাড় লকডাউন ৩-এ, একনজরে দেখে নিন

কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেন," রাজ্যপাল সরকারের সমালাচনা করতে পারেন না। ওনার এই সুবুদ্ধিটুকুও নেই। ওঁনার শুধু একটাই চিন্তা কীভাবে মুখ্যমন্ত্রীকে অ্যাটাক করা যায়। রাজনৈতিক চিন্তাভাবনায় ধর্ম বৈষম্য সৃষ্টি করে রাজ্যপাল নোংরামি করে বেড়াচ্ছেন।" কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপাল-কে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ করে বলেন, রাজস্থান থেতে ভোটার কার্ড বদলি করে এই রাজ্যে নিয়ে আসুন, আর পরবর্তী ভোটে দাঁড়িয়ে লড়াই করুন, আপপনার কী হালটা হয় আমরাও দেখতে চাই। দেখে নিন ভিডিওটি-

 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বনাম জগদীপ ধনকড় বিতর্ক এই মুহূর্তে সরগরম করে রেখেছে রাজ্য-রাজনীতিকে, তৃণমূল কংগ্রেস সমানে রাজ্যপাল...

Posted by Asianet News Bangla on Saturday, 2 May 2020