উত্তম দত্ত, হুগলি:  পরিকল্পনামাফিক খুন নাকি আত্মহত্যা? বাসের ভিতর থেকে উদ্ধার হল চালকের ঝুলন্ত দেহ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হুগলির চুঁচুড়ায়। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: পাঁশকুড়ায় হুড়মুড়িয়ে ভাঙল সাঁকো, চাঞ্চল্যকর ভিডিও

জানা গিয়েছে, মৃতের নাম শেখ মহরম আলি। বাড়ি, চুঁচুড়া শহরের খাগড়াজোল মসজিদপাড়া এলাকায়। স্থানীয় একটি রুটে বাস চালাতেন তিনি। লকডাউনের সময়ে সেই বাসটি আবার ভাড়া নেয় পুলিশ। পরিবারের লোকেদের দাবি,  রবিবার রাতে খাওয়া-দাওয়ার পর বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান মহরম। এরপর আর ফেরেননি। সোমবার সকালে বাড়ি মাত্র এক কিমি দূরে বাসের ভিতরেই তাঁর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পাওয়া যায়। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। অস্বাভাবিক মামলা রুজু করে শুরু তদন্ত। 

আরও পড়ুন: থিম করোনা ভাইরাস, নম নম করে গণেশ পুজো পুরুলিয়ায়

বাসের ভিতরে কীভাবে মারা গেলেন মহরম? আত্মহত্যার সম্ভাবনা কিন্তু উড়িয়ে দিয়েছেন মৃতের পরিবারের লোকেরা। তাঁদের দাবি, ঝুলন্ত দেহ মিললেও জামাকাপড়ে রক্তের দাগ ছিল। পরিকল্পনামাফিক খুন করে তাঁকে বাসের ভিতরে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে! স্থানীয়দের কেউ কেউ আবার বলছেন, প্রায় প্রতিদিনই নেশা করতেন মহরম। নেশা ঘোরে বচসার জেরেও খুন হয়ে যেতে পারেন ওই বাসচালক। তবে এখনও পর্যন্ত থানায় কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।  চন্দননগর পুলিশ কমিশনারেট সূত্রে খবর, বাস চালকের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে সবদিকই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করে দেখবেন তদন্তকারীরা। উল্লেখ্য, সন্ধ্যা নামলেই চুঁচুড়া বাসস্ট্যান্ডে মদ, জুয়া-সহ নানা ধরণের অসামাজিক কাজকর্ম  চলে। স্থানীয় বাসিন্দাদের এই অভিযোগ কিন্তু দীর্ঘদিনের।