দিনের পর দিন ক্লাস নেওয়ার অছিলায় ছাত্রীদের সঙ্গে 'অশালীন আচরণ' করছিলেন তিনি। অবশেষে ধৈর্য্যের বাঁধ ভাঙল। প্রধানশিক্ষককে গাছে বেঁধে রাখল পড়ুয়ারাই। উদ্ধার করতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন পুলিশকর্মীরাও। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার সিমলাপালের উন্তিশোল রসনাময়ী জুনিয়র হাইস্কুলে।

আরও পড়ুনছ বেতন অনিয়মিত, অভাবের তাড়নায় সরকারি কলেজে আত্মঘাতী অধ্যাপক

উন্তিশোল রসনাময়ী জুনিয়র হাইস্কুল ছেলে ও মেয়েরা একসঙ্গে পড়াশোনা করে। স্কুলের প্রধানশিক্ষকের নাম অরুণ কুমার সিং মহাপাত্র। পড়ুয়াদের দাবি, ক্লাস নেওয়ার অছিলায় মাঝে-মধ্যেই শ্রেণিকক্ষে ঢুকতে পড়েন তিনি এবং ঘর থেকে ছাত্রদের বের করে দেন। এরপর প্রধানশিক্ষক নাকি ছাত্রীদের গান করতে বলেন! শুধু তাই নয়, গান গাওয়ার সময়ে তাদের হাত ধরে টানা-সহ বিভিন্ন ধরণের আশালীন আচরণও করেন অভিযুক্ত শিক্ষক। বুধবার স্কুল থেকে ফিরে বাড়ির লোককে ঘটনাটি জানায় এক ছাত্রী। অভিভাবকদের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার সকালে যখন প্রধানশিক্ষকের সঙ্গে কথা বলতে চান তাঁরা, তখন তিনি তেড়ে আসেন। আর তাতেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। ছাত্রীরাই প্রধানশিক্ষক স্কুল থেকে বের করে আনে এবং নিমগাছে বেঁধে রাখে। 

আরও পড়ুন: 'জলরাক্ষসে কেড়েছে প্রাণ', ক্যানিং-এ কুসংস্কারের বলি বালিকা

এদিকে এই ঘটনার খবর পেয়ে উন্তিশোল রসনাময়ী জুনিয়র হাইস্কুলে যায় সিমলাপাল থানার পুলিশ। প্রধান শিক্ষকের শান্তির দাবিতে পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে পড়ুয়া ও অভিভাবকরা। কোনওমতে জনরোষের হাত থেকে অরুণ কুমার সিং মহাপাত্রকে উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য় তাকে আটক করেছে পুলিশ। যদিও যাবতীয় অভিযোগকে মিথ্যা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন প্রধানশিক্ষক।