একটি নয়, এবার থেকে জোড়া ইঞ্জিন নিয়ে হাওড়া থেকে দিল্লির মধ্যে যাতায়াত করবে রাজধানী এক্সপ্রেস। এর ফলে যাত্রাপথের সময় এখনকার তুলনায় প্রায় দেড় ঘণ্টা কমে যাবে বলে দাবি পূর্ব রেলের। 

ইতিমধ্যেই দু'টি ইঞ্জিন লাগিয়ে যাত্রীশূন্য একটি রাজধানী এক্সপ্রেসের রেক নিয়ে হাওড়া থেকে গয়া পর্যন্ত ট্রায়াল রান সম্পূর্ণ হয়েছে। এই পদ্ধতির নাম 'পুশ- পুল সিস্টেম'। নতুন ব্যবস্থায় ট্রেনের সামনের মতোই একদম শেষে থাকবে আরও একটি ইঞ্জিন। ফাঁকা ট্রেন নিয়ে করা এই ট্রায়াল রান সফল হয়েছে বলেই পূর্ব রেল কর্তৃপক্ষের দাবি। ঘণ্টায় প্রায় ১৩০ কিলোমিটার গতিতে ট্রায়াল রানের সময় ট্রেন ছোটানো হয়। 

আরও পড়ুন- চা খেলেই খসাতে হবে ১৫ টাকা, দুরন্ত- রাজধানীতে লাফিয়ে বাড়ল খাবারের দাম

আরও পড়ুন- বিনা টিকিটে রাজধানীতে সওয়ার, জরিমানা এড়াতে জামা-কাপড় খুলে অন্তর্বাসে মহিলা

রেলের তরফে জানানো হয়েছে, সামনে এবং পিছনে জোড়া ইঞ্জিন থাকায় ট্রেনের গতি বৃদ্ধি এবং তা কমানোর জন্য সময় কম লাগবে। সবমিলিয়ে হাওড়া এবং দিল্লির মধ্যে প্রত্যেকবার যাতায়াত করতে বর্তমানে রাজধানী যা সময় নেয়, নতুন ব্যবস্থায় তা প্রায় ৯০ মিনিট কমে যাবে। 

ভারতীয় রেলের অধীনস্থ রিসার্চ ডিজাইন অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ডস অরগানাইজেশন বা আরডিএসও-র বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানেই জোড়া ইঞ্জিন লাগিয়ে ট্রায়াল রান হয়। রেলের তরফে জানানো হয়েছে, নতুন ব্যবস্থায় সামনে যে ইঞ্জিনটি থাকে, সেটিকে বলা হয় 'মাস্টার লোকো'। আর ট্রেনের শেষে থাকা ইঞ্জিনটিকে বলা হয় 'স্লেভ লোকো'। ইলেক্ট্রনিক কাপলারের মাধ্যমে দু'টি ইঞ্জিনই সংযুক্ত থাকবে।