মৌলিককান্তি মণ্ডল, নদিয়া:  স্বামীই কি গুলি করে খুন করল? সরকারি হাসপাতালের নার্সের মৃত্যুতে চাঞ্চল্য ছড়াল নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জে। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। মৃতার স্বামীর খোঁজে তল্লাশি চলছে।

আরও পড়ুন: বিশ্বকর্মা পুজোয় 'ফূর্তি', মদের টাকা না দেওয়ায় যুবককে 'বেধড়ক মার'

জানা গিয়েছে, মৃতার নাম স্বপ্না বিশ্বাস। বাড়ি, কৃষ্ণগঞ্জের স্বর্ণখালি গ্রামে। কৃষ্ণগঞ্জ হাসপাতালে অধীনে জয়ঘাটা সাব সেন্টারে নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়িতেই ছিলেন স্বপ্না। আচমকাই গুলির শব্দ শোনা যায়। কী ব্যাপার? ঘরে গিয়ে প্রতিবেশীরা দেখেন, স্বপ্না রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন মেঝেতে। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় কৃষ্ণগঞ্জ ব্লক হাসপাতালে। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রোগীকে কৃষ্ণনগর জেলা হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন চিকিৎসকরা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। কৃষ্ণনগর জেলা হাসপাতালে  অস্ত্রোপচার চলাকালীন মারা যান ওই নার্স। এরপর নিয়মমাফিক দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে দেয় পুলিশ। 

আরও পড়ুন: ছাত্র 'অপহরণে' ৭ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি, খালপাড়ে অপহৃতের দেহ উদ্ধারে ভাঙচুর-উত্তেজনা

কিন্তু বাড়ি ভিতর ঢুকে কারা গুলি চালাল? রহস্যভেদ করতে মৃতার শ্বশুরবাড়ি লোকেদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে শুরু করে পুলিশ। আর তাতেই উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা যায়, স্বামী জয়দেবের সঙ্গে প্রায়ই অশান্তি হত স্বপ্নার। সরকারি হাসপাতালে নার্সকে গুলি করে খুন করেছে তাঁর স্বামীই! প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, রাগের মাথায় নয়, রীতিমতো পরিকল্পনা করে একাজ করেছে অভিযুক্ত জয়দেব। স্ত্রীকে খুন করার জন্য আগে থেকে আগ্নেয়াস্ত্রও জোগাড় করে রেখেছিল সে। ঘটনার পর থেকে বেপাত্তা জয়দেব। তার সন্ধানে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। নেপথ্যে কি স্রেফ দাম্পত্য কলহ নাকি অন্যকোনও কারণও আছে? খতিয়ে দেখা হচ্ছে তাও।