দিনেদুপুরে প্রকাশ্যে এক তৃণমূল নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি ছঁড়ল দুষ্কৃতীরা। মাথার পিছনে লেগে গুলিটি বেরিয়ে গিয়েছে। গুলিবিদ্ধ ওই ব্যক্তিকে ভর্তি করা হয়েছে বাইপাসের ধারে একটি হাসপাতালে। ফের শুটআউট উত্তর চব্বিশ পরগণার ভাটপাড়ায়।

আরও পড়ুন: করোনার কবলে মন্ত্রীর দেহরক্ষী, শিলিগুড়িতে আক্রান্তের সংখ্যা হাজার পেরোল

আক্রান্ত তৃণমূল নেতার নাম ধর্মেন্দ্র সিং ওরফে ধরুয়া। বুধবার সকালে ভাটাপাড়ার আর্যসমাজ মোড়ে একটি কারখানার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। আচমকাই কয়েক দুষ্কৃতী এসে তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় লুটিয়ে পড়েন ধর্মেন্দ্র। এরপর চোখের নিমেষে এলাকা থেকে চম্পট দেয় হামলাকারীরা। আক্রান্তকে উদ্ধার করে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। ঘটনার জেরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তদন্ত শুরু করেছে ব্যারাকপুর কমিশনারেটের পুলিশ। ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ জোগাড় করার চেষ্টা চলছে। 

আরও পড়ুন: যাদবপুরে যুবতীর অস্বাভাবিক মৃত্যু কাণ্ডে নয়া মোড়, নাম জড়াল প্রেমিকের

কে এই ধর্মেন্দ্র সিং? কেনই বা তিনি গুলিবিদ্ধ হলেন? জানা গিয়েছে, একসময়ে অর্জুন সিং-এর অনুগামী হিসেবে পরিচিত ছিলেন ধর্মেন্দ্র। পরে অর্জুন যখন বিজেপিতে যোগ দেন, তখন দল বদলে ফেলেন তিনিও। কিন্তু অল্পদিনের ব্যারাকপুরের সাংসদের সঙ্গে দুরত্ব বাড়ে এবং ফের তৃণমূলে ফিরে আসেন ধর্মেন্দ্র। তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি ছাড়ার পর ফোনে একাধিকবার তাঁকে হুমকি দিয়েছে খোদ অর্জুন সিং, তাঁর ভাইপো পাপ্পু সিং ও তাঁদের অনুগামীরা। অর্জুন সিং-ই লোক লাগিয়ে ধর্মেন্দ্রকে খুনের চেষ্টা করেছেন।  অভিযোগ উড়িয়ে ব্যারাকপুরের সাংসদের পাল্টা দাবি, তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কারণে এলাকায় গুলি চলেছে।