পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে পাঞ্জাব থেকে ব্যান্ডেল স্টেশনে এলো শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন।২৪ কামরার স্পেশাল ট্রেন নির্ধারিত সময়ের বেশ কিছুটা দেরিতে ব্যান্ডেলে এসে পৌঁছায়।বেলা তিনটেয় সময় থাকলেও রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ  ব্যান্ডেল স্টেশনের ৩ নম্বর প্ল্যাটফর্মে ঢোকে ট্রেন। ৮৫৪ জন যাত্রীকে নিয়ে হুগলিতে ফেরে স্পেশাল ট্রেন। 

হুগলি ছাড়াও নদিয়া,উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা,মুর্শিদাবাদ,কলকাতা,হাওড়া ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পরিযায়ী শ্রমিক ও বেশ কিছু আটকে পরা পর্যটক ফেরেন এই ট্রেনে। এক একটি করে কামরার দরজা খোলা হয় তারপর শ্রমিকদের নামিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। পরে ৪২টি বাসে করে শ্রমিকদের নির্দিষ্ট জেলায় পৌঁছে দিতে অনেক রাত হয়ে যায়।

জানা গিয়েছে, হুগলি জেলার শ্রমিকদের বাসে করে পোলবা মহেশ্বরপুর হাইস্কুলে নিয়ে যাওয়া হয়।সেখানে তাদের লালারসের নমুনা সংগ্রহের পর বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়। চন্দননগর কমিশনারেটের পুলিশ আধিকারিক রেল পুলিশ আধিকারিক  ও হুগলি জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা  উপস্থিত ছিলেন ব্যান্ডেল স্টেশনে। ছিলেন কিছু তৃণমূল নেতৃবৃন্দ । দীর্ঘদিন আটকে থেকে টাকা পয়সা শেষ হয়ে গিয়েছিলো। কাজ ছিলো না।বাড়ি ফেরার জন্য উদগ্রীব হয়ে উঠছিলেন শ্রমিকরা।ঘরে ফিরতে পেরে খুশি তারা। লকডাউন উঠলে পরিস্থিতে  স্বাভাবিক হলে আবার কাজে ফিরতে চান বলে জানান শ্রমিকরা।